ফাইল ছবি

কলকাতাঃ  চলতি মাসেই রাজ্য সরকারি কর্মীরা ডিএ নিয়ে সুখবর শুনতে পারেন। কারণ ইতিমধ্যে রাজ্য সরকারি কর্মীদের মহার্ঘ ভাতা (ডিএ) মামলায় হলফনামা পেশ করার অনুমতি পেতে হাইকোর্টে গিয়েছে সরকারপক্ষ। হাইকোর্টে এই সংক্রান্ত আবেদনও ইতিমধ্যে পেশ করা হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। যা নিয়ে নতুন করে তৈরি হয়েছে স্যাটে জটিলতা। কারণ এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি নভেম্বরেই শেষ হয়ে যায়। কিন্তু হাইকোর্টের বিষয়টি সরকারের তরফে নতুন করে তোলা হয় স্যাটে। যেখানে স্যাটকে লিখিতভাবে জানানো হয়, হলফনামা পেশের জন্য হাইকোর্টে যে আবেদন পেশ করা হয়েছে, তার নিষ্পত্তির জন্য অপেক্ষা করা হোক।

মামলার শুনানিতে স্যাট জানিয়েছে, হাইকোর্টের এই সংক্রান্ত কোনও নির্দেশ আগামী ৬ ডিসেম্বরের মধ্যে সরকারপক্ষকে পেশ করতে হবে। হাইকোর্টের কোনও নির্দেশ না পাওয়া গেলে ৬ ডিসেম্বরের পর স্যাট ডিএ মামলার রায় ঘোষণা করে দেবে।

গত অগস্ট মাসে কলকাতা হাইকোর্ট রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ নিয়ে ঐতিহাসিক রায় দেয়। যেখানে আদালত জানায়, রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ পাওয়া অধিকার। একই সঙ্গে কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশে জানায়, রায়ের দুই মাসের মধ্যে ডিএ মামলার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে। মধ্যবর্তী পুজোর সময়ের ও অন্যান্য ছুটি ধরলে এই দুই মাসের সময়সীমা ১২ ডিসেম্বর শেষ হচ্ছে। হাইকোর্টের যে নির্দেশ আছে, তাতে এই সময়ের মধ্যে স্যাটকে রায় দিতে হবে।

হাইকোর্টের রায়ে সরকারপক্ষ ও মামলার আবেদনকারীকে যথাক্রমে তিন সপ্তাহ ও পরবর্তী এক সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা স্যাটে জমা দিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু সরকারপক্ষ কোনও হলফনামা ওই সময়ের মধ্যে দেয়নি। সরকারপক্ষের হলফনামা জমা না পড়ায় মামলার আবেদনকারী সরকারি কর্মী সংগঠনের নেতা মলয় মুখোপাধ্যায়ের তরফে কোনও হলফনামা জমা পড়েনি। সরকারের তরফ থেকে তখন কারণ দেখানো হয়, প্রয়োজনীয় ফাইল খুঁজে না পাওয়ার জন্য হলফনামা দেওয়া যাচ্ছে না। এই অবস্থায় হলফনামা ছাড়া শুনানির সিদ্ধান্ত নেয় স্যাট।