নয়াদিল্লি : বড়সড় চাকরির ঘোষণা রেলের। রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের ঘোষণা অনুযায়ী খালি হয়েছে ১.৪ লক্ষ পদ। ইতিমধ্যেই নোটিফিকেশন জারি করেছে বোর্ড। আরআরবি জানিয়েছে নন টেকনিক্যাল পপুলার ক্যাটাগরিতে পদ খালির বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এছাড়াও আইসোলেটেড ও মিনিস্ট্রিয়াল ক্যাটাগরি ও রেলওয়েজ লেভেল ১-এর জন্য ১৫ই ডিসেম্বরের পর থেকে লিখিত পরীক্ষা শুরু হবে।

১৫ই ডিসেম্বর থেকে অনলাইনে পরীক্ষার থাকবে। ১.৪ লক্ষ পদ খালি রয়েছে। ইতিমধ্যেই আবেদন জমা পড়েছে ১.১৫ কোটি। আইসোলেটেড ও মিনিস্ট্রিয়াল ক্যাটাগরিতে খালি রয়েছে ১৬৬৩টি পোস্ট। এনটিপিসিতে খালি ৩৫,২০৮টি পোস্ট। লেভেল ১য়ে খালি ১,০৩,৭৬৯টি পোস্ট।

সিনিয়র টাইম কিপার,কমার্শিয়াল আপ্রেনটিস, স্টেশন মাস্টার, ট্রাফিক অ্যাসিসট্যান্ট, সিনিয়র কমার্শিয়াল কাম টিকিট ক্লার্ক, গুডস গার্ড, জুনিয়র ক্লার্ক কাম টাইপিস্ট, অ্যাকাউন্টস ক্লার্ক কাম টাইপিস্ট, জুনিয়র টাইম কিপার, ট্রেন ক্লার্ক, কমার্শিয়াল কাম টিকিট ক্লার্ক, সিনিয়র ক্লার্ক কাম টাইপিস্ট, জুনিয়র অ্যাকাউন্টেন্ট, হিসেবে নিযুক্ত করা হবে ৩৫,২০৮ জনকে।

আইসোলেটেড ও মিনিস্ট্রিয়াল ক্যাটাগরিতে নিযুক্ত করা হবে ১৬৬৩ জনকে। খালি রয়েছে স্টেনোগ্রাফার, চিফ ল অ্যাসিসট্যান্ট, জুনিয়র ট্রান্সলেটর (হিন্দি), পিজি টিচার, ট্রেইনড গ্রাজুয়েট টিচার, পিআরটি ইত্যাদি পদ। কম্পিউটারে নেওয়া হবে পরীক্ষা। ১৫ থেকে ১৮ই ডিসেম্বর পরীক্ষা নেওয়া হবে।

রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের আওতাধীন লেভেল ১ ক্যাটাগরিতে নেওয়া হবে ১,০৩,৭৬৯ জনকে। খালি রয়েছে ট্র্যাক মেন্টেনার, পয়েন্ট ম্যানের পদ। এই সব কটি পদের জন্য পরীক্ষা চলবে ২০২১ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।