বেনাপোল সীমান্ত(যশোর): নিরাপত্তারক্ষীদের চোখ এড়িয়ে বেনাপোল কাস্টমসের সরকারি ভল্টে লুঠপাটের ঘটনায় চাঞ্চল আগেই ছড়িয়েছে। সেই ঘটনার তদন্ত চলছে। তারই মাঝে বড়সড় সোনা পাচারকারী দলকে গ্রেফতার করল বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ। ধৃতদের মধ্যে এক মহিলা।

বিজিবি জানিয়েছে, ভারতে পাচার করার সময় এই মহিলা সহ তিনজনের কাছে ১৬টি সোনার বার মিলেছে। তার মোট ওজন, তিন কেজি ৪৮৫ গ্রাম। এর মূল্য় বাংলাদেশি মূল্যে প্রায় ১ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ জানিয়েছে, বুধবার সকালে বেনাপোল পোর্ট থানার আমড়াখালী, দৌলতপুর ও ঘিবা সীমান্ত থেকে পাচারকারীদের আটক করা হয়। জানা গিয়েছে, এরা সীমান্তের ওপারে পশ্চিমবঙ্গে বেআইনি সোনা পাচার করছিল।

পাচারকারীদের সম্পর্কে গোপন সংবাদ পেয়ে বিজিবি অভিযান চালায়। বেনাপোল লাগোয়া আমড়াখালী থেকে রবিউল ইসলামকে আট পিস (৭৮৫ গ্রাম), ঘিবা সীমান্ত থেকে দিলীপ কুমারকে দুই পিস (দুই কেজি) ও দৌলতপুর সীমান্ত থেকে মনিরা খাতুনকে ছয় পিস (৭০০ গ্রাম) মোট তিন কেজি ৪৮৫ গ্রাম সোনার বার সহ গ্রেফতার করা হয়।

এরা দীর্ঘদিন ধরে অর্থের বিনিময়ে ভারতে সোনাপাচার করে আসছিল বলে বিজিবি জানিয়েছে। ধৃতদের জেরা করে পাচারকারীদের সম্পর্কে আরও তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। যশোরের বেনাপোল বন্দর সংলগ্ন এলাকায় বড় চক্র সোনা পাচারের সঙ্গে জড়িত। ঢাকায় তাদের চাঁইরা বসে এই পাচারচক্র চালায়।

ভারতের দিকে উত্তর ২৪পরগনার পেট্রাপোল ও সীমান্তবর্তী এলাকার বাংলাদেশি পাচারচক্রের এজেন্টদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে ঢাকার পাচারচক্রের।