গান্ধীনগর: গোধরা ট্রেন বিস্ফোরণের ঘটনায় ১১ জন অপরাধীর ফাঁসির সাজা লঘু করল গুজরাত হাইকোর্ট। এদের ফাঁসির সাজাকে লঘু করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হল এদিন। ঘটনায় মৃতদের পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারকে। সেইসঙ্গে বাকি ২০ জন অপরাধীর যাবজ্জীবনের সাজা জারি রাখল আদালত।

সোমবার এই মামলার শুনানি ছিল গুজরাত হাইকোর্টে। বিচারপতি এএস দাভে ও জিআর উধওয়ানির বেঞ্চ এদিন এই রায় দেয়। ছ’সপ্তাহের মধ্যে ক্ষতিপূরণ দিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিচারপতি দাভে জানিয়েছেন, ‘পুরো প্রমাণ খতিয়ে দেখেছি। মূলত যাত্রী, আহত ও রেলকর্মীদের বয়ানের উপর ভিত্তি করা হয়েছে। খতিয়ে দেখা হয়েছে ফরেন্সিক রিপোর্ট। ‘

২০০২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারির ঘটনা। সবরমতী এক্সপ্রেসের S-6 কোচে ছিলেন ৫৯ জন যাত্রী। যাদের বেশির ভাগই ছিলেন করসেবক। অযোধ্যা ফিরছিলেন এরা। সেই কোচ জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। ২০১১ সালে এই ঘটনার তদন্তে স্পেশাল সিট গঠন হয়। ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয় ৩১ জন। এদের মধ্যে ১১ জনকে ফাঁসোর নির্দেশ দেওয়া হয়। ২০ জনকে যাবজ্জীবনের নির্দেশ দেওয়া হয়।

৩১ জনের বিরুদ্ধে হত্যা, হত্যার চেষ্টা ও অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের মামলা দায়ের করা হয়। মূল অভিযুক্তরা হল মৌলানা উমরজী, মহম্মদ হুসেন কালোটা, মহম্মদ আনসারি ও নানুমিয়া চৌধুরি।