কলকাতা: আজ দেবীপক্ষের অষ্টমী তিথি। মহাষ্টমীর তিথি নেমেই আজ, বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত চলবে অঞ্জলি৷ সকাল ৯টা ৪৫ থেকে শুরু হয়ে যাবে অঞ্জলি দেওয়ার পর্ব৷ একশো আটটা পদ্ম দিয়ে আজ পূজিত হবেন দেবী দুর্গা৷ সন্ধ্যায় সন্ধি পুজোয় একশো আটটা প্রদীপ দিয়ে দেবীকে আরতি করা হবে৷ আতপ চাল, ভেজানো মুগ ডাল, মটর, ছোলা সহ নানাধরনের ফল, মিষ্টি, নারকেল নাড়ু, তক্তি বরফি দিয়ে সাজানো হবে দেবীর নৈবেদ্য৷

সন্ধিপুজো মা দুর্গার আরাধনার এক বিশেষ মুহূর্ত। সন্ধি মানে মিলন। এই মুহূর্তটি হল অষ্টমী তিথি ও নবমী তিথির মিলন। মহাসন্ধিক্ষণ। অষ্টমী তিথির শেষ চব্বিশ মিনিট ও নবমী তিথির প্রথম চব্বিশ মিনিট মিলিয়ে মোট আটচল্লিশ মিনিট। এই সন্ধিক্ষণেই দেবী জেগে উঠে উগ্রচণ্ডী রূপ ধারণ করেছিলেন। তাই এই সময় দেবীর বিশেষ পুজো। অশুভ শক্তির বিনাশ করে শুভ শক্তির জয়ের জন্য আরাধনা৷

মহাষ্টমীতে অঞ্জলি দেওয়ার জন্য মণ্ডপে মণ্ডপে শুরু হয়েছে ভিড়। দুপুর পর্যন্ত অঞ্জলি থাকায় সাতসকালেই এই গুরু দায়িত্বটা সেরে ফেলেছেন অনেকেই। ফলে, এবার শুধুই ঠাকুর দেখার পালা। ফলে, অষ্টমীর সকালেই মণ্ডপে মণ্ডপে ভিড় জমাচ্ছে৷ পুজো উদ্যোক্তাদের আশা, অষ্টমীর ভিড় সপ্তমীর রাতের ভিড় কেউ ছাপিয়ে যাবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।