নয়াদিল্লি: কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন গোয়ার ১০ জন বিধায়ক। ইতিমধ্যেই তাঁরা দিল্লি পৌঁছেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে। তাঁদের সঙ্গে দিল্লিতে এসেছেন গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ন্ত। তিনি জানিয়েছেন, বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য কাউকে জোর করা হয়নি।

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, সব বিধায়কেরাই উন্নয়নের স্বার্থে বিজেপির কাছে এসেছেন।তাঁরা নিজেরাই এসেছেন, কেউ চাপ দেয়নি। তাঁরা নিঃস্বার্থভাবে বিজেপি সরকারকে সমর্থন করবেন।

বৃহস্পতিবারই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা ও অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করানো হবে এই বিধায়কদের। তবে গোয়ার মন্ত্রিসভায় কোনও রদবদল হবে কিনা, সে ব্যাপারে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

বর্তমানে গোয়ায় রয়েছেন কংগ্রেসের মাত্র পাঁচ বিধায়ক। ওদিকে কর্ণাটকের রাজনৈতিক পরিস্থিতিও অনেকটা একই রকম।

গত সপ্তাহেই ১৩ জন বিধায়ক ইস্তফা দিয়েছিলেন কর্ণাটকের কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকারে। তারপর থেকেই সংকটে পড়েছিল কুমারাস্বামী সরকার। সরকারের টালমাটাল অবস্থার খবর পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারাস্বামী ১০ দিনের মার্কিন সফর থেকে দেশে ফেরার পরেই তাই বিমানবন্দরেই নিজের দল জেডি(এস) নেতা এবং শরিক দল কংগ্রেসের সঙ্গে বসালেন গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক।

কর্ণাটকের কংগ্রেস নেতৃত্ব যদিও জানিয়েছে, মন্ত্রিসভায় রদবদল হলে সমস্যার সমাধান হতে পারে। এআইসিসি সাধারণ সম্পাদক কেসি ভেনুগোপাল জানিয়েছেন, “কয়েকজন বিধায়কের কিছু ক্ষোভ রয়েছে। দলের বৃহত্তর স্বার্থের কথা ভেবে তারা স্বেচ্ছায় দলত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন”।

সোমবার কর্ণাটকের দুই বিধায়ক ইস্তফা এবং সমর্থন সরিয়ে নেওয়ায় সংকট বাড়ল কংগ্রেস-জেডি জোট সরকারের। দু’দল থেকে ৩০ জন বিধায়ক মন্ত্রিসভায় রদবদলের দাবিতে ইস্তফা দিয়েছেন। ফলে কংগ্রেস-জনতাদল জোট সরকার কার্যত প্রশ্ন চিহ্নের মুখে এসে দাঁড়িয়েছে।