পানাজি: প্রয়াত গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিক্কর৷ শোক জ্ঞাপণ করেছে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ গোয়ার অন্যতম শ্রেষ্ঠ সন্তান হিসাবে অখ্যায়িত করা হয়েছে প্রয়াত পারিক্করকে৷ কিন্তু মাথায় রয়েছে রাজ্য রাজনীতির সমীকরণও৷

মধ্যরাতে রাজ্যপাল মৃদুলা সিনহার কাছে চিঠি দিয়ে সরকার গঠনের দাবি জানানো হয়েছে প্রদেশ কংগ্রেস ও বিরোধী দলনেতার তরফে৷ গোয়া বিধানসভার একক বৃহত্তর দল হিসাবে কংগ্রেসের রাজ্যে সরকার গঠনের সুযোগ পাওয়া উচিত বলে দাবি হাত শিবিরের৷

রাজ্যপালকে রবিবার মধ্যরাতে পৃথকভাবে চিঠি দেন গোয়া প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি গিরিশ চন্দাকার এবং গোয়া বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা চন্দ্রকান্ত কাভলেকার৷ ওই চিঠিতে রাজ্যপালকে জানানো হয়েছে, বর্তমানে গোয়া বিধানসভায় সংখ্যালঘু বিজেপি সরকার৷ মনোহক পারিক্করকে মুখ্যমন্ত্রী করতে হবে এই শর্তেই বিজেপির জোটসঙ্গী জিএফপি ও এমজিপি তাদের সমর্থন করেছিল৷

কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর প্রয়াণের পর সেই শর্ত আর থাকার কথা নয়৷ ফলে কংগ্রেসকে সরকার গঠনের সুযোগ দেওয়া হোক৷ রাজনীতির অঙ্ক নির্ধারণে এরপরই দিল্লিতে উড়ে গিয়েছেন গোয়ার অভিজ্ঞ কংগ্রেস নেতা দিগম্বর কামাত৷

পরিস্থিতি যে অনুকূলে নেই তা বুঝতে পারচ্ছেন গেরুয়া শিবিরের চাণক্য অমিত শাহ-ও৷ জোটের অন্যন্য দলের নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলছেন তিনি৷ আজ, সোমবারই পারিক্করের জায়গায় কে বসবেন তার নবাম চূড়ান্ত হয়ে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷ বিজেপি সূত্রে খবর, গোয়া বিধানসবার স্পিকার প্রমোদ সায়ন্তকেই পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে বেছে নেওয়া হবে দলের তরফে৷

গোয়া বিধানসবায় মোট আসন ৪০ হলেও বর্তমানে বিধায়ক সংখ্যা ৩৬৷ এর মধ্যে বিজেপির রয়েছে ১২টি আসন৷ তাদের জোট সঙ্গী গোয়া ফরওয়ার্ড পার্টি এবং মহারাষ্ট্রবাদী গোমানতাক পার্টির হাতে আছে ৩টি করে আসন৷ কংগ্রেস বিধানসবার একক বৃহত্তম দল৷ তাদের রয়েছে ১৪ জন বিধায়ক৷ এনসিপি এক৷ নির্দল আছেন ৩ জন৷ ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে বহু বিতর্কের পর গোয়ায় বিজেপির মনোহর পারিক্কর সরকার গঠিত হয়৷