নয়াদিল্লি : “এ বিশ্বকে শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি”। না আমরা পারিনি। অন্য কোনও দেশে হয়েছে কিনা তা বলা যায় না, তবে ভারতে যে সেকথা রাখা হয়নি তারই প্রমাণ দিল গ্লোবাল হাংগার ইন্ডেক্স। সম্প্রতি প্রকাশ হওয়া গ্লোবাল ইন্দেক্স-এ ভারত রয়েছে ১১৭ টি দেশের মধ্যে ১০২ নম্বরে। যা কিনা এশিয়া মহাদেশের মধ্যে সবথকে খারাপ।

এমনকি পাকিস্তান যেখানে সর্বদা এশিয়া মহাদেশের লাস্টবয় ছিল সে টেক্কা দিয়েছে ভারতকে। তাঁর স্থান এবার ৯৪। আর ভারত শেষ করেছে ১০২-এ।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সাল থেকেই এই তালিকায় ক্রমশ নীচের দিকে নেমেছে ভারত। ২০১৫ সালে এই তালিকায় ৯৩ নম্বরে ছিল ভারত আর এখন সেখানে এখন ৯ ধাপ পিছনে এসে দাঁড়িয়েছে দেশ। উল্টোদিকে ২০১৫ সালে ১০৬ নম্বর স্থানে জায়গা পেয়েছিল পাকিস্তান, সেখানে এখন পাকিস্তানের জায়গা হয়েছে ৯৪ নম্বরে। অর্থাৎ ১২ ধাপ এগিয়ে গিয়েছে প্রতিবেশী রাষ্ট্র।

এই গ্লোবাল রিপোর্টে বলা হয়েছে, অত্যাধিক জনসংখ্যার কারণেই এই হাল হয়েছে ভারতের। এই মুহূর্তে দক্ষিণ এশিয়ার অবস্থাই সবথেকে খারাপ বলে জানিয়েছে রিপোর্ট। আর এর অন্যতম কারণ হল ভারতে ক্রমবর্ধমান চাইল্ড ওয়েস্টিং রেট। যা কিনা বর্তমানে ২০.৮ শতাংশ।

এই তালিকায় সবচেয়ে ওপরের দিকে রয়েছে, ক্রুয়েশিয়া, কিউবা, বুলগেরিয়ার মতো দেশ। অন্যদিকে ভারতের অন্য প্রতিবেশী রাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা রয়েছে ৬৬ নম্বরে, নেপাল রয়েছে ৭৩ নম্বরে। অন্যদিকে নাইজেরিয়ার মতো দেশের থেকেও নীচে রয়েছে ভারত।