প্রতীকি ছবি

ভোপাল: ফের গণধর্ষণের মতো নক্ক্যারজনক ঘটনা। এবার ঘটনাস্থল মধ্যপ্রদেশের রাতলাম। জানা গিয়েছে শনিবার সন্ধ্যায় পাড়ার মুদি দোকানে যাওয়ার সময় নিখোঁজ হয়ে যায় ওই ১২ বছরের কিশোরী। পরে তাঁর দেহ উদ্ধার করা হয়।

এই ঘটনায় গুজ্জরওয়ারা গ্রাম থেকে কাল্লু, দীপক এবং রবি নামে তিন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এরা তিনজনেই গবাদি পশু চরাবার কাজ করে। জেলা পুলিশ সুপার গৌরব তিওয়ারি একটি প্রেস কনফারেন্সে জানিয়েছেন, যখন ওই কিশোরী নিখোজ হয়ে যায়, তখন ওই তিনজনকে ওই এলাকায় মদ খেতে দেখা গিয়েছিল। পুলিশের দাবি, জেরায় অভিযুক্তরা অপরাধ স্বীকার করেছে।

রবিবার রাস্তা থেকে ২০০ মিটার দূরে একটি ভূট্টার ক্ষেতে ওই কিশোরীর দেহ উদ্ধার করা হয়। ওই জায়গা থেকে কিছুটা দূরেই উদ্ধার করা হয় তাঁর ছেঁড়া জুতো সহ মুদি দোকান থেকে কেনা জিনিসগুলির।

পুলিশ জানিয়েছে, কিশোরীকে মাঠে নিয়ে গিয়ে তাঁকে গণধর্ষণ করা হয়। এরপর একটি পুকুরে নিয়ে গিয়ে মাথা ডুবিয়ে তাঁকে খুন করার পরে অভিযুক্তরা তার দেহ ভূট্টার ক্ষেতে রেখে পালিয়ে যায়।

পুলিশের বক্তব্য অনুযায়ী, ওই তিনজনের আগে থেকে এমন কোনও পরিকল্পনা ছিল না। মেয়েটিকে একা দেখতে পেয়েই তারা তাঁকে অপহরণ করে গণধর্ষণের পর খুন করে।

পুলিশ জানিয়েছে, এটা জঘন্যতম অপরাধ। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে চার্জশিট ফাইল করা হবে বলে জানানো হয়েছে পুলিশের তরফে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।