লন্ডন: ভয়ঙ্কর সাইক্লোন ‘ডেনিস’এ বিপর্যস্ত গোটা ব্রিটেন। সাউথ ওয়েলস এবং ইংল্যান্ডের বেশ কয়েকটি জায়গায় ঝড়ের পরিস্থিতি ভয়াবহ। রবিবার আয়ারল্যান্ডের উপকূলে ডেনিস ঝড়ের ফলে প্রায় হাজার মাইল পথ অতিক্রম করে একটি ভুতুড়ে জাহাজ ভেসে এসেছে।

জানা গিয়েছে, ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে মার্কিন কোস্টগার্ড বারমুডা থেকে দক্ষিণ-পূর্বে প্রায় ১৩০০ মাইল দূরে ১০ জনকে লোককে উদ্ধার করে ওই জাহাজটি। তারপর থেকেই তানজানিয়ায় পতাকাযুক্ত এই কার্গো জাহাজটি আর ব্যবহার করা হয়নি।

রবিবার ভুতুড়ে এই জাহাজটি কাউন্টি লন্ডনের বালিকটনে পৌঁছনোর আগে, আফ্রিকার পশ্চিম, উত্তর পূর্ব স্পেন এবং তারপরে ইংল্যান্ডের পশ্চিম উপকূল থেকে ভেসে ভেসে এসেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এই বিষয়ে বালিকটন আরএনএলআই লাইফবোটের প্রধান জন তাতান আইরিশ পরীক্ষককে বলেন, ”এমন ঘটনা এর আগে আমি কখনও দেখিনি। এক কথায় এটি একটি বিরল ঘটনা। আফ্রিকার পশ্চিম, উত্তর পূর্ব স্পেন এবং ইংল্যান্ডের পশ্চিম উপকূল থেকে শেষে আইরিশ উপকূলে এসে থামে জাহাজটি।”

তিনি আরও বলেন, গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে এই জাহাজটিকে মধ্য আটলান্টিক মহাসাগরে ভাসতে দেখা গিয়েছিল। যদিও এর মালিকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হচ্ছে। এর আগেও জাহাজের প্রকৃত মালিকের খোঁজ করা হয়েছিল। কিন্তু তা বিশেষ ফলপ্রসূ হয়নি। মনে করা হচ্ছে, জাহাজটি কেউ হয়ত চুরি করেছিল। ঝড়ের ফলে সেটি ভাসতে ভাসতে এখানে চলে এসেছে।

অন্যদিকে, ডেনিসের ফলে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের পরিবেশ সংস্থাগুলো সাউথ ওয়েলসে টাফ নদী ও নিথ নদীর ও ওয়েলস-ইংল্যান্ড সীমান্ত এলাকায় টিম নদীর চারটি এলাকায় মারাত্মক বন্যা হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করেছে। পাশাপাশি ইংল্যান্ডে আরও ২৪০টি এলাকায়, ওয়েলসের ৭০টি এলাকায় এবং স্কটল্যান্ডের ২০টি এলাকায় বন্যা সতর্কর্তা জারি করা হয়েছে, এমনটাই জানিয়েছে সংবাদসংস্থা রয়টার্স।

এদিকে ওয়েলসের পুলিশের তরফে ইতিমধ্যে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, পুলিশ-প্রশাসন বন্যা ও ভূমিধসের বহু ঘটনার মোকাবিলা করছে। বাড়িগুলি থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়ে যেতে হচ্ছে আমাদের। আর এসবের কারণে কিছু এলাকা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে, তবে ওইসব এলাকার বাসিন্দাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করছে জরুরি বিভাগের কর্মীরা।