নয়াদিল্লি: ঘোর কলিযুগে ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করা সম্ভব নয়। এমনটাই মন্তব্য করলেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অরুণ মিশ্র। করোনা আতঙ্কের জেরে ভারতের শীর্ষ আদালতে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ মামলাগুলির শুনানি হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

করোনা ভাইরাসে সারা বিশ্বে এখনও পর্যন্ত ১,৬৮,০০০ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মৃতের সংখ্যা ৬,৬০০ জন। লক্ষ লক্ষ মানুষ গৃহবন্দি রয়েছেন। জনজীবন স্তব্ধ রয়েছে বহু শহরে। করোনা-আতঙ্কে সুপ্রিম কোর্টে কেবল গুরুত্বপূর্ণ মামলাগুলিরই শুনানি হবে। আর এই প্রসঙ্গে এক আইনজীবীর প্রশ্নের উত্তরে বিচারপতি অরুণ মিশ্র বলেন, ‘‘এমন মহামারী প্রতি ১০০ বছরে হয়। ঘোর কলিযুগে ভাইরাসের সঙ্গে আমরা লড়াই করতে পারব না।”

তিনি আরও বলেন, ‘‘মানুষের অসহায়তা দেখুন। আপনি যা খুশি করতে পারেন। যে কোনও অস্ত্র ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু আপনি ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করতে পারবেন না।”

গত সপ্তাহে এক বৈঠকের পর শীর্ষ আদালত সিদ্ধান্ত নেয়, কেবলমাত্র জরুরি মামলাগুলিরই আপাতত শুনানি হবে সুপ্রিম কোর্টে। সাধারণত ১৫ বেঞ্চের জায়গায় এখন শুনানি হচ্ছে কেবল ৬টি বেঞ্চে।

বিচারপতি অরুণ মিশ্র আরও বলেন, কেবল সরকারকে নয়, এই লড়াই সকলকেই লড়তে হবে। তিনি বলেন, ‘‘যদি আমরা আমাদের মতো করে লড়তে পারি তাহলে অবশ্যই জিততে পারব। আপনার লড়াই আপনাকেই লড়তে হবে, অন্য কেউ সেটা লড়তে পারবে না।”

ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা অন্য দেশগুলির নিরিখে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে দাবি করেছে হু।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দাবি, ভারতবাসীর সচেতনতার কারণেই দেশে এখনও ভয়াল রূপ নিতে পারেনি মারণ করোনা ভাইরাস৷ চিন থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসের সংক্রমণে জাপান, জার্মানি, গোটা ইউরোপ এবং আমেরিকায় বহু মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন৷ ভারতের সঙ্গেই রয়েছে চিনের সীমান্ত৷

সেই হিসেবে ভারতেও করোনা ভাইরাসের বড় প্রকোপ দেখতে পাওয়ার কথা। কিন্তু ভারতীয়দের সচেতনতা ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেওয়া প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের জেরে ভারতে তেমনভাবে করোনা ভাইরাস প্রভাব ফেলতে পারেনি বলে মনে করছেন হু-এর ওই প্রতিনিধি৷