স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রকাশিত হয়েছে ন্যাশনাল ইন্সটিটিউশনাল র‍্যাঙ্কিং ফ্রেমওয়ার্ক (২০১৯)। দিল্লির বিজ্ঞান ভবনের প্লেনারি হলে এক থেকে দশে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়গুলির নাম ঘোষণা করেছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

দেখা গিয়েছে, তালিকায় গত দুই বছরে ১০-এর নিচে চলে যাওয়া কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় উঠে এসেছে এই বছর পঞ্চম স্থানে। পিছিয়ে পড়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে জেইউ৷

ফলে প্রশ্ন জাগছে, কোথাও গিয়ে ঘেরাও,আন্দোলনই পিছিয়ে দিল না তো যাদবপুরকে! যদিও মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের এই র‍্যাঙ্কিং-এ পিছিয়ে পড়া নিয়ে এই প্রশ্ন মানতে নারাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মহল।

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিদ্যার অধ্যাপক পার্থ প্রতীম রায়ের বক্তব্য, ” আন্দোলন আর ঘেরাও নিয়েই যদি প্রশ্ন ওঠে তবে, জনমতের ভিত্তিতে কলকাতাকে অনেকটাই পিছনে ফেলে যাদবপুর কিভাবে এগিয়ে গেল! এই বিভাগে কলকাতা পেয়েছে ৪০ যাদবপুর ৫০। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ক্ষেত্রে মহিলাদের অংশগ্রহণ কমে যাওয়ার ফলে র‍্যাঙ্কিং-এ পিছিয়ে পড়েছে যাদবপুর। এছাড়া বিভিন্ন সামাজিক প্রকল্পে পড়ুয়াদের অংশগ্রহনের হার কমে গেছে বলে এই পরিস্থিতি দাঁড়িয়েছে। তাই এক্ষেত্রে ঘেরাও বা আন্দোলন কোন ভাবেই পিছিয়ে পড়ার কারন হতে পারে না। “