নয়াদিল্লি:  লোভনীয় পেনশন স্কীম কেন্দ্রের অনুমোদিত ন্যাশনাল পেনশন সিস্টেমের৷ এই প্রকল্প অনুযায়ী প্রতিদিন আপনাকে জমাতে হবে মাত্র ২১১ টাকা৷ তাহলেই অবসর নেওয়ার পরে আপনি প্রতি মাসে ৫০ হাজার টাকার পেনশন পাবেন৷

কীভাবে? এনপিএস বা ন্যাশনাল পেনশন স্কীম বলছে, প্রতিমাসে ২১১*৩০ অর্থাৎ ৬৩৩০ টাকা বিনিয়োগ করলেই এই পরিমাণ অর্থ অবসরের পরে হাতে পাবেন আপনি৷

কি থাকছে এই প্রকল্পে?

প্রতি দিন ২১১ টাকা করে বিনিয়োগে পেনশন হিসেবে পাবেন ৫০ হাজার টাকা৷ অবসরের পরে একবারে পাবেন ১৮ লক্ষ টাকা৷ তিরিশ বছর বয়স হলে এই বিনিয়োগ শুরু করার আদর্শ সময়৷ আর যদি আপনার বয়স ২৫ হয়, তবে পেনশন পাওয়ার পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াবে ৭৬ হাজার ৯৫৪ টাকা৷ এর পাশাপাশি, আপনি পাবেন ২৮ লক্ষ টাকা একবারে অবসরের পর৷

এইচডিএফসি ব্যাংকের অনলাইন এনপিএস ক্যালকুলেটর এই বিষয়ে সাহায্য করবে আপনাকে, যে আপনার ৩০ বছর বয়স অথবা ২৫ বছর বয়েস হলে কত টাকা অবসরের পর হাতে পাবেন আপনি৷

এই এনপিএস আপাতত পেনশন ফাণ্ড রেগুলেটরি ডেভেলপমেন্ট অথরিটির মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত হয়৷ তবে সরকার এখন চাইছে পিএফআরডিএ থেকে এনপিএসকে আলাদা করতে৷

আরও পড়ুন : বয়স আশি হলেই বিধায়কদের আয়ার খরচ দেওয়ার কথা ভাবছে সরকার

এদিকে এর আগেও অবসরপ্রাপ্তদের জন্য একগুচ্ছ ঘোষণা করেছিল কেন্দ্রের মোদী সরকার৷ প্রধানমন্ত্রী বয় বন্দন যোজনায় বিনিয়োগের সীমা বাড়ায় কেন্দ্র। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিতিতে এই সিদ্ধান্তে শিলমোহর দেয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। সাড়ে সাত লক্ষ থেকে সেই সীমা বাড়িয়ে ১৫ লক্ষ করা হয়। এর ফলে বয়স্ক নাগরিকেরা মাসে ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত পেনশন পেতে পারবেন বলে জানানো হয়েছিল।

একই সঙ্গে এই প্রকল্পে নাম নথিভুক্তিকরণের সময়সীমা ৪ মে ২০১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ মার্চ ২০২০ করে দেওয়া হয়৷ ষাটোর্দ্ধ যে কোনও ভারতীয় নাগরিক এই প্রকল্পে বিনিয়োগ করতে পারেন৷ এই যোজনায় বার্ষিক ৮ শতাংশ হারে ১০ বছর পর্যন্ত সুদ পেতে পারেন প্রবীণ নাগরিকেরা৷ বাজারে সুদের হার কমে গেলেও ১০ বছর পর্যন্ত ভর্তুকি দিয়ে সুদের হার একই রাখবে কেন্দ্র ৷ অনলাইন ছাড়াও অফলাইনেও এই প্রকল্পে বিনিয়োগ করা যায় ৷