নয়াদিল্লি: এলআইসি-র এমন অনেক পরিকল্পনা রয়েছে, যেখানে কেউ বিনিয়োগ করে ভালো লাভ পেতে পারেন। এলআইসিতে বিনিয়োগ নিরাপদও। একই সঙ্গে ইনসোরেন্সও পাওয়া যায়।

LIC এর নিউ মানি ব্যাক পলিসি

এলআইসির নতুন মানি ব্যাক পলিসিতে দুই ধরনের মেয়াদের বিকল্প রয়েছে। যে কোনও বিনিয়োগকারী ২০ বছর বা ২৫ বছরের মধ্যে যে কোনও একটি বিকল্প ম্যাচিউরিটির ক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন। ২৫ বছর ধরে কোনও পলিসিবাহক রোজ ১৬০ টাকা করে জমিয়ে ২৩ লক্ষ টাকা পেতে পারেন।

আরও পড়ুন – ‘যত দ্রুত সম্ভব বাংলায় কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠান’, কমিশনকে আবেদন মুকুলের

৫ বছরে মিলবে টাকা

যারা নতুন মানি ব্যাক পলিসিতে বিনিয়োগ করবেন তাঁরা প্রতি ৫ বছরে ১৫ থেকে শতাংশ টাকা ফেরত পাবেন। এর সঙ্গে ম্যাচিউরিটিতে মিলবে বোনাসও। আয়কর অনুযায়ী এই পলিসি সম্পূর্ণ করমুক্ত।

এলআইসি কন্যাদান পলিসি

এলআইসি মেয়ের বিয়ের জন্য একটি পরিকল্পনা নিয়ে এসেছে, এর নাম ‘এলআইসি কন্যাদান পলিসি’। এর আওতায় আপনাকে প্রতিদিন ১২১ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। অর্থাৎ আপনাকে প্রতি মাসে দিতে হবে ৩৬০০ টাকা। দৈনিক ১২১ টাকা বিনিয়োগ করে, আপনি ২৫ বছর পরে ২৭ লক্ষ টাকা পাবেন।

আরও পড়ুন – FREE তে মিলবে গ্যাস সিলিন্ডার, দুর্দান্ত অফার পেটিএমের

অর্থাৎ এলআইসি কন্যাদান পলিসি হোক বা নিউ মানি ব্যাক পলিসি-যে পলিসিই হোক না কেন ২৫ বছরের জন্য বিনিয়োগে বিনিয়োগকারী ২৩ লক্ষ টাকা থেকে ২৫ লক্ষ টাকা পাবেন। এ এক বিরাট সুযোগ বিনিয়োগকারীদের জন্য।

এছাড়া রয়েছে এলআইসি নিউ চিলড্রেনস মানি ব্যাক প্ল্যান। এক্ষেত্রে নূন্যতম জমার পরিমাণ ১০,০০০ টাকা। অন্যদিকে অধিকতম জমার কোনও সীমা ধার্য করা হয়নি।এই পলিসিতে মানিব্যাক আকারে টাকা ফেরত দেওয়া হয়। পলিসি ধারক ১৮, ২০, ২২ বছর বয়স পূর্ণ করার পরে টাকা দেওয়া হয়। এরপর ম্যাচিউরিটি হয়ে গেলে বাকি ৪০ শতাংশ টাকা বোনাসের সঙ্গে মেলে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।