প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি- শনিবার বাজেটে সুখবর দিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। জানানো হয়েছে আধার কার্ড থাকলেই এখন মিলবে প্যান কার্ড। আর তার জন্য কোনও ফর্ম ফিলাপও করতে হবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

জানানো হয়েছে, আয়কর বিভাগ খুব শিগগিরিই একটি নতুন সিস্টেম চালু করতে চলেছে। যার ফলে তৎক্ষণাৎ ভাবে মিলবে প্যান নম্বর। তবে তার জন্য অবশ্যই থাকতে হবে আধার কার্ড। বাজেটে নির্মলা দেবী জানিয়েছেন, করদাতারা নিজেদের সুবিধার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারেন। অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন, করদাতাদের সুবিধার জন্যই এই অনলাইন ব্যবস্থা আনা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত বছর থেকেই আয়করের ক্ষেত্রে আধার ও প্যান দুটি কার্ডি গ্রহণ করা হয়েছে। অন্যদিকে ২০২১ সালের মার্চের ৩১ তারিখের মধ্যে আধার-প্যান বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। আইটিআর, নতুন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা সহ একাধিক জায়গায় প্যান থাকা আবশ্যিক বলে ঘোষণা করেছে সরকার।

আর্থিক বাজেট নিয়ে এই ঘোষণায় প্যান কার্ড প্রাপ্তি আরও সরল হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে। তবে তা এখনও চালু না হলেও, খুব শিগগিরিই তা চালু হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ।

প্যানের পাশাপাশি রেলের জন্য একগুচ্ছ বড় ঘোষণা ঘোষণা করেছেন নির্মলা দেবী। রেলের নিরাপত্তা বাড়ানোর ক্ষেত্রে জোর দেওয়ার কথা বলেন তিনি। দুর্ঘটনা যাতে কমানো সম্ভব হয়, সে ব্যাপারেও উল্লেখ করেন। বাজেটে উল্লেখ করা হয়, মুম্বই-আমেদাবাদের মধ্যে উচ্চগতি সম্পন্ন ট্রেন চালানো হবে। একইসঙ্গে রেল ট্র্যাকের সঙ্গে সোলার পাওয়ার ক্যাপাসিটি সেট করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বাজেটে। এছাড়াও ৫৫০টি রেল স্টেশনে ওয়াই-ফাই বসানো হবে বলে জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে কৃষকদের জন্য এবারের বাজেটে বড় ঘোষণা করা হয়েছে। কৃষক ও কৃষির উন্নয়নের কথা মাথায় রেখে ১৬ পয়েন্টের অ্যাকশন প্ল্যান তৈরি করার প্রস্তাব দিয়েছে সরকার। সব ধরনের কৃষির ক্ষেত্রে বিশেষ নজর দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। ১০০ টি জেলা, যেখানে জলের সমস্যা রয়েছে, সেখানে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বাজেটে। সোলার পাম্প সেট করার জন্য ২০ লক্ষ কৃষককে টাকা দেবে সরকার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।