নতুন জুতো নিয়ে চিন্তার শেষ নেই৷ পায়ে হবে কিনা, চলতে ফিরতে পায়ে লাগবে কিনা, ফোস্কা পড়বে কিনা এরকম হাজারও চিন্তা৷ তার উপরে ফ্যাশনে ইন হওয়া লেটেস্চ স্টাইলের জুতো তো চাই-ই৷ এই সব কথা মাথায় রেখে ই এবার বাজারে আসছ নয়া জুতো৷
জাপান থেকে আমদানী হবে এই জুতো। খোলা অবস্থায় জুতো দেখলে মনে হবে কাপড়ের টুকরো। কিন্তু, পায়ে জড়ালেই হয়ে যাবে জুতো। ইতিমধ্যে জাপানে এই নয়া জুতো বাজারে আসতে শুরু করেছে।
জাপানের এক ডিজাইনারের মস্তিষ্ক প্রসূত এই ভাবনা। ফিতে ছাড়াই জুতো! কিন্তু, পায়ে এক্কেবারে ফিট। পায়ের মাপ নিয়ে কোনও সমস্যা হবে না৷ যে কোনও মাপের পায়েই অনায়েসে এঁটে যায় এই ম্যাজিক জুতা। কোম্পানির নাম ফুরোসিকি। জুতো পায়ে দিয়ে নিজের মতো করে জড়িয়ে নিলেই হয়, ব্যাস! একই জুতোকে আপনি নিজের ইচ্ছে মতো করে পেচিয়ে নিতে পারেন৷ করতে পারেন নিত্যনতুন ফ্যাশনও৷ পায়ের পক্ষে আরামদায়কও এই জুতো৷
যেখানে খুশি যাওয়া যেতে পারেন এই জুতো পায়ে দিয়ে। বিভিন্ন ডিজাইনের জুতো বের করেছে ফুরোসিকি। বিক্রিও হচ্ছে খুব। এই জুতোর চাহিদা তুঙ্গে জাপানের বাজারে৷

https://www.youtube.com/watch?v=QGJgvSzElFI&feature=youtu.be

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.