লখনউ: নিজে থেকেই গায়ে পড়ে আলাপ জমানোর চেষ্টা করছিলেন বলে অভিযোগ৷ তাই আমল দিতে চাননি বিদেশি পর্যটক৷ জবাব দেননি নমস্কারের৷ সেই ‘অপরাধে’ রীতিমতো মারধর করা হল পর্যটককে৷ মাটিতে ফেলে মারধর চলে৷ তাকে থাপ্পড়ও মারা হয়৷

ওই জার্মান পর্যটক বার্লিনের বাসিন্দা, নাম হোলগার এরিক। উত্তরপ্রদেশের সোনেভদ্রা স্টেশনে নেমে তিনি আগোরি যাওয়ার পথ জিজ্ঞাসা করছিলেন। তখন তাঁর সঙ্গে আলাপ করার চেষ্টা করেন আমন কুমার নামে স্থানীয় এক ইলেকট্রিশিয়ান। সেখানেই তাঁকে ভারতে আসার জন্য স্বাগত জানান আমন৷ অভিযোগ হোলগার তাঁর নমস্কারের জবাব না দেওয়ায় আমন চটে যান৷ তাঁকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দিয়ে মারতে শুরু করেন। আহতকে মীরজাপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, সেখানে চিকিৎসা হয়েছে তাঁর।

ঝামেলা মেটাতে স্থানীয় এক ব্যক্তি পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে গ্রেফতার করে অভিযুক্তকে। আমন অবশ্য এরিকের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাঁর দাবি, এরিকই দুর্ব্যবহার করেন তাঁর সঙ্গে। তিনি নাকি তাঁকে বলেন, ওয়েলকাম টু ইন্ডিয়া, তাতে এরিক তাঁকে ঘুষি মারেন, গায়ে থুতু দেন। আমনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে, তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

গতকাল প্রকাশ্যে এসেছে বৃন্দাবনে এক রুশ পর্যটককে বারবার ধর্ষণের অভিযোগ। এবার উত্তরপ্রদেশেরই সোনেভদ্রা রেল স্টেশনে এক জার্মান নাগরিককে মারধরের অভিযোগ উঠল৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ