নয়াদিল্লিঃ বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের কারণে চিন থেকে ক্রমেই নিজেদের ব্যবসা সরিয়ে নিচ্ছে একাধিক দেশ। আর সেই সুযোগ নিয়ে চলে যাওয়া কোম্পানিদের নিজেদের দেশে নিয়ে আসতে মরিয়ে হয়ে উঠেছে ভারত। ইতিমধ্যেই চিনের দ্রব্যের বিরুদ্ধে একাধিকবার সরব হয়েছেন দেশের মানুষজন। পাশপাশি কেন্দ্রের সরকার জোর দিয়েছেন দেশীয় জিনিস ব্যবহারের ক্ষেত্রেও। তবে এবারে ভারতের আগ্রাতে পা রাখতে চলেছে জার্মানি জনপ্রিয় এক জুতো কোম্পানি।

করোনার কারণে এমনই ইঙ্গিত মিলেছে ওই সংস্থার তরফ থেকে। ওই সংস্থার তরফে জানা গিয়েছে তারা তাদের উৎপাদন ক্ষেত্র ভারতের আগ্রাতে নিয়ে যেতে ইচ্ছুক। যার ফলে আগ্রাতে প্রায় ১০ হাজারের কাছাকাছি মানুষের কর্মসংস্থান হবে। জার্মানি জুতো সংস্থা ভন ওল্লেক্স দ্রুত সেই কারণে ভারতের মাটিতে পা রাখতে চলেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

যার ফলে এই জটিল সময়ে অনেক মানুষের কর্ম সংস্থান হবে। তারই সঙ্গে আন্তর্জাতিক কোম্পানির ভারতে প্রবেশ ঘটবে। এমএসএমই মন্ত্রী সিদ্ধার্থ নাথ সিং এবং অন্যান্য শীর্ষ স্থানীয় নেতারা বৈঠক করে জানিয়েছেন তারা ওই সংস্থাকে প্রয়োজনীয় জমি সহ অন্যা সুবিধা দিতে ইচ্ছুক যদি তারা আগ্রাতে নিজেদের উৎপাদন কেন্দ্র নিয়ে আসেন।ইতিমধ্যে এই নিয়ে একাধিক বৈঠক শুরু হয়েছে।

আপাত ভাবে জানা গিয়েছে ওই সংস্থা ইতিমধ্যে অন্য একটি সংস্থার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছে। তার ফলে তারা আগ্রাতে নিজেদের কারখানা গড়ে তুলতে পারবেন। পাশপাশি চূড়ান্ত পদক্ষেপ গ্রহন করার জন্য অন্যান্য পরিকল্পনা গ্রহন করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

এছাড়াও ল্যাত্রিক্স চেয়ারম্যান আরকে জৈন জানিয়েছেন জুতো শিল্প গড়ে তোলার জন্যব ইতিমধ্যে বাংলাদেশের তরফে একাধিক সুবিধা দেওয়া হয়েছে তাদের। আর সেই কারণে বাংলাদেশে একাধিক ব্যবসা বাংলাদেশে নিয়ে গিয়েছেন। তবে উত্তর প্রদেশ সরকারের তরফে প্রয়োজনীয় সুবিধা তাদের দেওয়া হলে তারা যে সেখানে উৎপাদন করতে আগ্রহী তার ইঙ্গিতও দিয়েছেন।

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে যদি ভারত সরকারের তরফে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করা হয় তাহলে বিশ্বজোড়া জুতো শিল্পের ক্ষেত্রেও ভারত নিজের ছাপ রাখতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে। পাশপাশি একাধিক মানুষের কর্ম সংস্থান হবে বলেও আশা করা হচ্ছে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV