নয়াদিল্লি: একজনের অধিনায়কত্বে জাতীয় দলে প্রতিষ্ঠা পেয়েছিলেন, আরেকজনের অধিনায়কত্বে পেয়েছেন জোড়া বিশ্বকাপের স্বাদ। তবু সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় কিংবা মহেন্দ্র সিং ধোনি নন। প্রাক্তন বাঁ-হাতি ওপেনার গৌতম গম্ভীরের চোখে সেরা অধিনায়ক অনিল কুম্বলে। স্টার স্পোর্টসের ক্রিকেট কানেক্টেড অনুষ্ঠানে এমনটাই জানালেন বর্তমান বিজেপি বিধায়ক।

গম্ভীরের সাফ কথা, ‘পরিসংখ্যান দিয়ে বিচার করা হলে অবশ্যই সেরা মহেন্দ্র সিং ধোনি। কিন্তু আমি যাঁদের অধীনে খেলেছি তাঁদের মধ্যে সেরা অধিনায়ক অনিল কুম্বলে।’ এখানেই শেষ নয়। অধিনায়ক হিসেবে মসনদে সামান্যদিন থাকলে অধিনায়ক হিসেবে নজর কেড়েছিলেন কিংবদন্তি লেগ-স্পিনার। তাই কুম্বলের অধিনায়কত্ব নিয়ে বলতে গিয়ে গম্ভীর জানিয়েছেন বেশি সময়ের জন্য কুম্বলে অধিনায়ক থাকলে অনেকের রেকর্ডই ভেঙে দিতেন।

গম্ভীরের কথায়, ‘সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় অধিনায়ক হিসেবে দারুণ কাজ করেছেন। তবে কুম্বলে একটু বেশি সময়ের জন্য অধিনায়ক থাকলে অনেকের রেকর্ড ম্লান করে দিতেন। আমি ব্যক্তিগতভাবে চেয়েছিলাম জাতীয় দলের হয়ে দীর্ঘ সময়ের জন্য অধিনায়ক থাকুক কুম্বলে। সম্ভবত ওর নেতৃত্বে ছ’টা টেস্ট খেলেছি আমি। ২০০৩ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের অভিষেক মঞ্চে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কেদলনায়ক হিসেবে পেলেও পরবর্তীতে অনিল কুম্বলে, রাহুল দ্রাবিড় এবং ধোনির নেতৃত্বে জাতীয় দলে খেলেছেন এই বাঁ-হাতি ওপেনার।

ধোনির নেতৃত্বেই টি-২০ ও ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন তিনি। ২০০৭ সালের নভেম্বরে অধিনায়কত্ব থেকে দ্রাবিড় সরে দাঁড়ানোর পর টেস্ট অধিনায়ক নির্বাচিত হন কুম্বলে। ধোনি সেই সময় সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটের নেতা হয়ে গেলেও লাল বলের ক্রিকেটে দলের দায়িত্ব প্রথমে বর্তায় কুম্বলের কাঁধে।

টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ (৬১৯) উইকেট শিকারি কুম্বলে ১৪টি টেস্টে জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার পর ২০০৮ অস্ট্রেলিয়া সিরিজের মাঝপথে অবসর নিয়ে ফেলেন। কুম্বলের অধিনায়কত্বে ১৪টি টেস্টের মধ্যে ৩টি টেস্টে জয়লাভ করে ভারত। ড্র করে পাঁচটিতে এবং হারতে হয় ছ’টিতে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।