নয়াদিল্লি: গ্যারি কার্স্টেন ও মহেন্দ্র সিং ধোনি৷ ভারতীয় ক্রিকেটে সফলতম কোচ ও ক্যাপ্টেনের কেমেস্ট্রি৷ গুরু-শিষ্যের সম্পর্ক ছিল দারুণ৷ তার ফল স্বরূপ ২৮ বছর পর ভারত ফের ঘরে তুলেছিল ওয়ান ডে বিশ্বকাপ৷

ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী কোচ কার্স্টেন বরাবরই ধোনিকে মহান নেতা হিসেবে চিহ্নিত করেছেন৷ মাহি যে তাঁর আনুগত্য ছিলেন, সেকথা জানাতেও ভোলেননি গুরু গ্যারি৷ ২০১১ বিশ্বকাপের ঠিক আগের একটি ঘটনা কথা উল্লেখ করে ধোনির গুরু-প্রেমের কথা জানান প্রাক্তন টিম ইন্ডিয়ার কোচ৷

দেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের ঠিক আগে বেঙ্গালুরুতে ছিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। সেই সময়ে বেঙ্গালুরুর একটি ফ্লাইট স্কুলের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল ভারতীয় দলকে। কিন্তু ধোনি একটি ফ্লাইট স্কুলে দল নিয়ে যাওয়া বাতিল করে দিয়েছিল৷ কারণ নির্ধারিত সফরের একদিন আগে সেই স্কুলের তরফে জানানো হয়েছিল যে, অনুষ্ঠানে ভারতীয় দলের দক্ষিণ আফ্রিকান কোচিং স্টাফদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না।

সে সময় ভারতীয় দলে কোচ গ্যারি কার্স্টেন ছাড়াও আরও দুই দক্ষিণ আফ্রিকান সাপোর্ট স্টাফ ছিলেন৷ এঁরা হলেন প্যাডি আপটন এবং এরিক সিমন্স। সেই ঘটনা প্রসঙ্গে কার্স্টেন জানান, ‘আমি কখনই ভুলব না, বিশ্বকাপের ঠিক আগে আমরা বেঙ্গালুরুতে থাকাকালীন ফ্লাইট স্কুলে যাওয়ার জন্য আমাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল৷ কিন্তু অনুষ্ঠানের দিন সকালে জানানো হয়, আপটন, সিমন্স ও আমাকে নিরাপত্তার কারণে অনুষ্ঠানে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হবে না। পুরো দল তো অনুষ্ঠানের জন্য তৈরি হচ্ছিল। ধোনি তা জানার পরেই সেই অনুষ্ঠানে যাওয়ার পরিকল্পনা বাতিল করে দেন। ধোনি সব শুনে বলেছিল, সবাইকে যদি অনুষ্ঠানে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া না-হলে আমরা কেউই যাব না।’

ইউটিউবে আর কে শো-তে ধোনি সম্পর্কে কার্স্টেন আরও জানান, ‘ আমি দেখা করেছি এমন একজন চিত্তাকর্ষক লোকদের মধ্যে তিনি একজন জনগণের মহান নেতা, তিনি নেতা হিসাবে অবিশ্বাস্য উপস্থিতি পেয়েছেন, তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হল আনুগতের৷

ধোনির সঙ্গে তাঁর রাসায়নের কথা উল্লেখ করে ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী কোচ বলেন, ‘ধোনি আমার প্রতি অনুগত ছিল। সব সময়ে আমরা যে ম্যাচ জিততে পেরেছিল, এমনটা নয়৷ কিন্তু কঠিন সময়ের মধ্যে কীভাবে টিমকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়, সেই সম্পর্কে আমাদের মধ্যে দীর্ঘ সময় আলোচনা হয়েছে৷ আমাদের খুব ভালো সম্পর্ক ছিল।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ