নয়াদিল্লি: পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য এবার দারুণ সুখবর দিলেন মোদী। ঘোষণা করা হল ৫০,০০০ কোটি টাকার প্রকল্প। মনে করা হচ্ছে করোনার জেরে লকডাউনের মধ্যে বাড়ি ফেরা কাজ হারানো পরিযায়ী শ্রমিকেরা এবার কাজ পেতে চলেছেন। প্রধানমন্ত্রী মোদীর ঘোষিত এই প্রকল্পটির নাম ‘গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযান’।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই স্কিমটি পরিযায়ী শ্রমিকদের কথা ভেবেই করা হয়েছে। যারা লকডাউনের মধ্যে মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে পড়ে হৃদয় বিদারক অবস্থায় খবরের শিরোনামে এসেছিল। মোদী বলেন, এতদিন আপনারা শহরগুলোর উন্নতির জন্য নিজেদের কর্মদক্ষতা দিয়েছেন, এবার পরিযায়ীদের তাঁদের বাড়ির কাছেই কাজের সুযোগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

আজ শনিবার একটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিহারের তেলিহার গ্রামে ‘গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযান’ প্রকল্পের ভার্চুয়াল সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁর সঙ্গে ভার্চুয়ালি এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার।

প্রকল্পের সূচনার সময়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আজ একটা ঐতিহাসিক দিন, দরিদ্রদের জন্য ‘গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযান’ শুরু করা হল। ” তিনি বলেন, আমার শ্রমজীবী​বন্ধুরা, দেশ আপনাদের অনুভূতি ও প্রয়োজনীয়তার কথা বোঝে। ‘ এই গরিব কল্যান যোজনা বিহার থেকে শুরু করা হল, এটি সেই আবেগ ও প্রয়োজনীয়তা পূরণ করবে।’

বিহার, উত্তরপ্রদেশ, মধ্য প্রদেশ, ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা ও রাজস্থান এই ৬ রাজ্যের মোট ১১৬ টি জেলায় ১২৫ দিন ‘গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযান’ চলবে। এই প্রতিটি জেলায় প্রায় ২৫ হাজার শ্রমিক আছেন, যারা লকডাউনে কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

এই প্রকল্পের জন্য ৫০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। গ্রামীণ এলাকায় কর্মসংস্থানই এই প্রকল্পের মূল লক্ষ্য।

মার্চের শেষে হঠাৎ করেই দেশ লকডাউন হয়ে যাওয়ায় লক্ষ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক খাদ্য, আশ্রয় বা চাকরি ছাড়াই বেরিয়ে পড়েছিল বাড়ির উদ্দেশ্যে। কয়েক হাজার যাত্রী শত শত কিলোমিটার হেঁটে বাড়ি ফিরতে বাধ্য হয়েছিল এ সময়।

ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণ উন্নয়ন মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান এবং রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ