নয়াদিল্লি: যত দিন বাড়ছে করোনা নিয়ে উদ্বেগ যেন বেড়েই চলেছে। সারা দেশে মারণ ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছুঁই ছুঁই। ইতিমধ্যেই মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য লকডাউনের দ্বিতীয় পর্যায়ে প্রবেশ করেছে সারা দেশ। এমন সময় সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে টিম ইন্ডিয়া ধরা দিল ‘টিম মাস্ক ফোর্স’ হয়ে। যে টিমের অংশ প্রাক্তন এবং বর্তমান ভারতীয় ক্রিকেট দলের ১০ জন ক্রিকেটার। রয়েছেন মহিলা ক্রিকেটাররাও।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে শুক্রবার একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়। যে ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে দেশবাসীকে কঠিন সময় ঘরে তৈরি মাস্ক ব্যবহার করতে বলছেন ভারতীয় ক্রিকেট তারকারা। আর এর মাধ্যমেই ১৩০ কোটি ভারতীয়কে মাস্ক ফোর্সের অংশ হতে বলেছেন সেলেব ক্রিকেটাররা। ভিডিওতে রয়েছেন বিরাট কোহলি, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, রোহিত শর্মা, হরভজন সিং, বীরেন্দ্র সেহওয়াগ, স্মৃতি মন্ধনা, হরমনপ্রীত কর, মিতালি রাজ, রাহুল দ্রাবিড় এবং অবশ্যই সচিন তেন্ডুলকর।

ভিডিওতে দেশের মানুষকে বার্তা দিয়ে ক্রিকেটাররা বলেন, ‘ভারতীয় দলের অংশ হওয়া একটা গর্বের ব্যাপার। কিন্তু আজ তার চেয়েও বড় একটা টিম তৈরি হতে চলেছে। যার নাম টিম মাস্ক ফোর্স। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী করনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়তে তৈরি করছেন একাধিক টাস্ক ফোর্স। আমাদেরও ঠিক তেমনই ঘরে ঘরে তৈরি করতে হবে একটা করে মাস্ক ফোর্স। এই মাস্ক ফোর্সের শরিক হওয়া খুবই সহজ ব্যাপার। কেবল ঘরে বসে প্রত্যেককে নিজের জন্য বানাতে হবে একটা করে মাস্ক। আর ঘরের বাইরে পা রাখলে অবশ্যই সেতা দিয়ে মুখ ঢাকতে হবে।’

একইসঙ্গে সাবান দিয়ে ঘন ঘন হাত ধোঁয়ার পক্ষেও ভিডিওতে সওয়াল করেন লিটল মাস্টার। ভিডিওটিতে অংশগ্রহণ করা প্রত্যেক ক্রিকেটারকে নিজে হাতে তৈরি পছন্দের মাস্ক দিয়ে মুখ ঢাকতে দেখা যায়। কীভাবে ঘরে বসে তৈরি করবেন মাস্ক। তার উপায়ও বাতলে দেওয়া হয়েছে ভিডিওতে। প্রধানমন্ত্রী দ্বিতীয় দফার লকডাউন ঘোষণা করার দিনে ‘আরোগ্য সেতু’ নামে একটি অ্যাপের উল্লেখ করেছিলেন। সেই অ্যাপেই মাস্ক বানানোর পদ্ধতি পেয়ে যাবেন সকলে।

উল্লেখ্য, গত মাসের শেষদিকে করোনা উৎকণ্ঠার মধ্যেই দেশের ৪০ জন ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। করোনা মোকাবিলায় দেশের মানুষকে সচেতন করতে ক্রীড়াবিদদের নানা উপায় অবলম্বন করার পরামর্শ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর কথামতোই ভারতীয় ক্রিকেট দলের এই অভিনব প্রচেষ্টা বলে মনে করা হচ্ছে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা