প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর : উত্তর ২৪ পরগণার হালিশহরের ডানলপ গঙ্গারঘাট থেকে রাজ্য সরকারের পরিবহন দফতরের উদ্যোগে শুরু হল ওয়াটার বাস পরিষেবা। শারদীয়া উৎসবকে সামনে রেখেই এই পরিষেবা চালু হল।

একেবারে সম্পূর্ণ শীততাপ নিয়ন্ত্রিত ১৬৬ সিটের ওয়াটার বাসটি প্রত্যেকদিন সকাল ৯ টায় হালিশহরের ডানলপ ঘাট থেকে ছাড়বে। বিলাসবহুল এই ওয়াটার বাসটি যাবে গঙ্গা সাগর পর্যন্ত। জন প্রতি ভাড়া মাত্র ২৩০ টাকা । হালিশহর থেকে ছেড়ে এই ওয়াটার বাসটি যাবে চন্দননগর, মিলেনিয়াম পার্ক হয়ে গঙ্গাসাগর পর্যন্ত যাবে এই ওয়াটার বাস।

একেবারে সম্পূর্ণ শীততাপ নিয়ন্ত্রিত এই ওয়াটার বাস পরিষেবা হালিশহর গঙ্গা বক্ষ থেকে চালু হওয়ায় কয়েক লক্ষ মানুষ উপকৃত হবেন বলে মনে করা হচ্ছে। বিশেষ করে হালিশহর সংলগ্ন নৈহাটি, কাঁচড়াপাড়া, কল্যাণী, ভাটপাড়া এলাকার বাসিন্দারা উপকৃত হবেন বলে খবর।

লোকাল ট্রেন বন্ধ রয়েছে। মানুষকে কষ্ট করে গন্তব্যে পৌঁছতে হচ্ছে। যেখানে করোনা থেকে বাঁচতে সোশ্যাল ডিসটেন্সিংয়ের কথা বলা হচ্ছে সেখানে বাসে কার্যত ঝুলতে ঝুলতে মানুষকে কাজে আসতে হচ্ছে। এই অবস্থায় খুব সহজে জলপথে প্রত্যেকদিন নিত্য যাত্রীরা পৌঁছে যেতে পারবেন কলকাতা বা গঙ্গা সাগরে।

একেবারে ভিড় এড়িয়ে নিত্য যাত্রীরা তাদের গন্তব্যে পৌঁছে যাবে বলে আশা করছে প্রশাসন।

হালিশহর পুরসভার পুর-প্রশাসক রাজু সাহানি এই প্রসঙ্গে বলেন, “প্রত্যেকদিন এলাকার বাসিন্দারা শীততাপ নিয়ন্ত্রিত এই ওয়াটার বাসে করে কলহাতায় পৌঁছতে পারবে । রাজ্য সরকারের পরিবহন দপ্তরের উদ্যোগে চালু করা হল এই ওয়াটার বাস । এলাকার বাসিন্দারা খুব খুশি নতুন এই পরিবহন ব্যাবস্থা চালু হওয়ায় ।”

গঙ্গায় নামল ওয়াটার ট্যাক্সি।

এদিন নৈহাটি বিধানসভার বিধায়ক পার্থ ভৌমিক ফিতে কেটে এই ওয়াটার বাস পরিষেবার সূচনা করেন ।

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I