স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: ফের বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে গঙ্গানদী। যার জেরে নতুন করে আবার প্লাবিত হয়েছে মানিকচকের রামনগর জোট পাট্টা সহ আরও পাঁচটি গ্রাম। জলবন্দি হয়ে পড়েছে ওই সব গ্রামের হাজার খানেক পরিবার। গ্রামের বাসিন্দাদের অভিযোগ গত দু’দিন ধরে গঙ্গার জলস্তর বাড়ছে যার জেরে আবার নতুন করে প্লাবন দেখা দিয়েছে মানিকচকের এই গ্রামগুলিতে। গঙ্গায় প্লাবিত গ্রামগুলির বাসিন্দারা জানিয়েছেন, গত দু’দিন ধরে জলস্তর বাড়লেও তাঁরা কেমন আছেন, কী খাচ্ছেন বা কোথায় রয়েছে তাঁদের বর্তমান পরিস্থিতি দেখতে এখনও পর্যন্ত দুইদিন পেরিয়ে গেলেও প্রশাসনের কোনও কর্তা ব্যক্তিদের দেখা যায়নি তাঁদের গ্রামে।

সূত্রের খবর, গ্রামের বাসিন্দারা আরও অভিযোগ করে জানিয়েছেন, পুজোর মরশুমে এখন তাঁদের কার্যত জলবন্দি হয়ে থাকতে হচ্ছে। রাতের অন্ধকারে আতঙ্কে দিন কাটালেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাঁদের জন্য কোনও রকম খাবারের বন্দোবস্ত করে দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছে মানিকচকের গ্রামবাসীরা। এদিকে জলবন্দি হয়ে পড়ায় ছেলে-মেয়েদের স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সূত্রের খবর, গত দুই দিন ধরে ফের নতুন করে আবার এইসব নদী তীরবর্তী গ্রামীণএলাকায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় স্কুল গুলিতেও পঠনপাঠনের কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। শুধু তাই নয় জলবন্দি হয়ে পড়েছে ছোট ছোট বাচ্চাদের আইসিডিএস সেন্টার গুলিও।

গ্রামবাসী সূত্রে খবর, বর্তমানে পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়ে গিয়েছে যে নৌকা না পেয়ে যাতায়াতের জন্য স্থানীয় মানুষদের প্রান হাতে নিয়ে উঁচু কোনও জায়গায় থাকার জায়গার সন্ধানে বেড়তে হচ্ছে।

পুজোর আগে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় যে ভাবে নদীর জল বাড়ছে প্রতিনিয়ত তাতে মানুষের প্রাত্যাহিক জনজীবন ব্যাহত হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। এখন শুধু এই পরিস্থিতি কাটিয়ে কবে স্বাভাবিক জীবনে ফিরবেন গ্রামের মানুষগুলো। সেই উৎকণ্ঠায় দিন কাটছে মানিকচকের গ্রামের সাধারণ পরিবারগুলির।