হাওড়া:  গঙ্গায় স্নান করতে নেমে জলে তলিয়ে গেলেন শ্মশানযাত্রী এক ব্যক্তি। বুধবার বেলা ১২টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার শিবপুর শ্মশানঘাটে। খবর পেয়ে শিবপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। কলকাতা রিভার ট্রাফিক পুলিশে খবর দেওয়া হয়। রিভার ট্রাফিক পুলিশের বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর কর্মীরা জলে নেমে প্রায় ঘন্টা দেড়েক উদ্ধারকাজ চালান। বিকেল পর্যন্ত দেহ উদ্ধার হয়নি। স্থানীয়রা জানান, ওই ব্যক্তি শবদাহ করতে শ্মশানে এসেছিলেন। গঙ্গায় নেমেছিলেন স্নান করতে। সে সময় জোয়ারের টানে তিনি তলিয়ে যান। জলে ডুবুরি নামিয়ে তল্লাশির পরেও দেহ উদ্ধার হয়নি।

জানা গিয়েছে, নিখোঁজ ওই ব্যক্তির নাম বাপি মন্ডল বয়স ৪২। বাড়ি শিবপুরের মালিবাগানে গোলাম হোসেন সরদার লেনে। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী পুতুল বারিক জানান, এদিন তাঁর এক প্রতিবেশীর মৃত্যুর জন্য সৎকার করতে শ্মশানে যান বাপি। সৎকারের পর দুপুর প্রায় ১২টা নাগাদ গঙ্গায় স্নান করতে সকলের সঙ্গে বাপিও নামেন। ওই সময় গঙ্গায় জোয়ার আসে। সকলেই জল থেকে উঠে আসতে পারলেও বাপি ডাঙায় উঠতে পারেননি। ওই অবস্থায় সে লঞ্চ জেটির কাছে যাওয়ার চেষ্টা করেন। সাহায্যের জন্য হাতও নাড়ছিলেন তিনি। কিন্তু জোয়ারের টানে ঘাট থেকে অনেকটা দূরে ভেসে গিয়েছিলেন।

তারপর ঘুর্নীর মধ্যে পড়ে ডুবে যান বাপি। ওই অবস্থায় তাঁর সঙ্গে আসা ব্যক্তিরা সাহায্যের জন্য আবেদন করেছিলেন। কিন্তু তা সম্ভব হয় নি। পুতুলদেবী আরও জানিয়েছেন, প্রায় সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে শিবপুর থানার পুলিশ এসে পৌঁছয়। খবর পেয়ে ডুবুরি এসে বেশ কয়েক ঘন্টা তল্লাশি চালায়। কিন্তু দেহ না পেয়ে চলে যায় তাঁরা। এদিকে, পুলিশের পক্ষ থেকে জানা হয়েছে, এই ঘটনায় ডিএমজি গ্রুপের কর্মীরাও আসে। আনা হয় ডুবুরিও। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালানো হয়। কিন্তু বাপির খোঁজ পাওয়া যায়নি। গঙ্গার নিকটবর্তী থানাগুলোতে খবর দেওয়া হয়েছে।