গাজিয়াবাদ: মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে এক কলেজ পড়ুয়াকে গণধর্ষণ করার অভিযোগ। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গাজিয়াবাদের সুরানা গ্রামে৷ গোটা দেশে ধর্ষণের ঘটনা এখন রোজকার খবরের কাগজের শিরোনাম হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইতিমধ্যে এই ঘটনায় অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছে বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন ৷অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে ইতিমধ্যে জাল বিছিয়েছে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন। পুলিশ সূত্রে খবর, ঘটনার পরেই এলাকা ছাড়া অভিযুক্তরা। অভিযুক্তদের খোঁজে শুরু হয়েছে তল্লাশি।

সুরানা গ্রামের বাসিন্দা বি টেক পড়ুয়া ওই মেধাবী ছাত্রী এদিন সন্ধ্যার পর বাড়ি থকে বের হন দোকানে কেনাকাটা করাতে যাওয়ার জন্য৷ পথে দুই যুবক তাকে ফাঁকা রাস্তা পেয়ে মোটর বাইকে তুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ৷ কাছেই ছিল তাদের ডেরা৷ সেখানে নিয়ে গিয়ে ওই ছাত্রীর মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে লাগাতার তাকে ধর্ষণ করা বলে অভিযোগ৷

নির্জাতিতা ওই তরুণী পুলিশকে দেওতা বয়ানে জানিয়েছে, একজন যখন পাশবিক নির্যাতন চালাতে ব্যস্ত, তখন অন্যজন ওই তরুণীর মাথায় চেপে ধরে ছিল বন্দুক৷ আগেই দেওয়া ছিল হুমকি, চিৎকার করলেই নিশ্চত মৃত্যু৷ফলে চিৎকারও করতে পারেনি ওই তরুণী ৷ ধর্ষণের পর তাকে রাস্তায় ফেলে পালায় ধর্ষকরা৷ পথচলতি মানুষ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় বলে জানিয়েছে সে।

সুরানা গ্রামের পুলিশকর্তা আর পি শর্মা জানান, ধর্ষিতার জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে৷ অভিযুক্তদের খোঁজ চলছে৷