পুনে: কোন গাড়িতে রয়েছেন জওয়ানরা, সেই খবর স্থানীয়রাই দিয়েছিল মাওবাদীদের৷ এমনই সন্দেহ করছে পুলিশ৷ পুলিশ সূত্রে খবর মহারাষ্ট্রের গড়চিরৌলিতে ভয়াবহ মাওবাদী হামলার মূল সূত্রধর ছিল স্থানীয় বাসিন্দারাই৷ তাঁরাই জওয়ানদের গতিবিধি সম্পর্কে তথ্য দিয়েছিল মাওবাদীদের৷ যাতে খুব সহজেই গাড়ি চিহ্নিত করে হামলা চালাতে পারা যায়৷

তবে পুলিশ বিভাগের সমন্বয়ের অভাবও এই হামলার অন্যতম কারণ৷ কারণ বেশ কয়েকদিন আগেই গোয়েন্দা দফতর সূত্রে খবর এসেছিল, এরকম বড়সড় হামলা হতে পারে৷ তবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ৷ এই নিয়ে রীতিমত বিতর্কের ঝড় উঠেছে৷ কেন তথ্য থাকা সত্ত্বেও এড়ানো গেল না হামলা, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে৷

স্ট্যাণ্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর বা এসওপির উল্লেখ করেছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা৷ তাঁরা বলেছে এই প্রসিডিওর বা নিয়ম মানা হয়নি৷ কার্যত সতর্কতাকে উপেক্ষা করা হয়েছিল৷ রিপোর্ট বলছে, সি-৬০ কমান্ডোদের নিয়ে যে গাড়িটি কুরখেদা পুলিশ স্টেশন থেকে দাদপুর গ্রামের দিকে যাচ্ছিল, সেই গাড়িটি চিনিয়ে দিয়েছিল স্থানীয়রাই৷ ফলে খুব সহজেই হামলা চালাতে পেরেছিল মাওবাদীরা৷

রিপোর্ট বলছে, জওয়ানদের গাড়ি যাওয়ার আগে একটি পর্যবেক্ষণ টিম এলাকা পরিদর্শন করে, এক্ষেত্রে সেটাও করা হয়নি৷ তাছাড়া এই জওয়ানদের জন্য মাইনরোধক কোনও গাড়ি ব্যবহার করা হয়নি৷ তাদের নিয়ে যাওয়ার জন্য ছিল সাধারণ মানের গাড়ি৷ ফলে বিস্ফোরণ অভিঘাত এত প্রবল হয়৷

ফাইল ছবি

এই হামলার তথ্য সরবরাহে যুক্ত থাকার অভিযোগে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন গ্রামবাসীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ৷ এদিকে, বুধবার সকালেই আইইডি বিস্ফোরণে রক্তাক্ত হয়েছে মহারাষ্ট্রের মাটি৷ ১৫ জন কমান্ডো শহিদ হয়েছেন ভয়াবহ মাওবাদী হামলায়৷ মৃত্যু হয়েছে গাড়ির চালকেরও৷ সেই ঘটনাকে স্মরণ করে বদলার বার্তা দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷

এক ট্যুইট বার্তায় মোদী বলেন মাওবাদীদের এই বর্বরোচিত হামলার কড়া নিন্দা করছি৷ গড়চিরৌলিতে জওয়ানদের শহিদ হওয়ার ঘটনা ভুলবে না দেশ৷ সমুচিত জবাব দেওয়া হবে৷ এই ধরণের ঘটনা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না৷ হামলাকারীরা পার পাবে না ৷

বুধবার সকালে পুলিশের গাড়ি উড়িয়ে দেয় মাওবাদীরা৷ ১৫ জন কমান্ডো শহিদ হন৷ বুধবার মহারাষ্ট্রের গড়চিরৌলিতে কুরখেদা করচি রোডের ওপর জাম্বুরখেদা গ্রামর কাছে হামলা চলে৷ পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে আইইডি বিস্ফোরণ ঘটায় মাওবাদীরা৷ তার পরেই শুরু হয় গুলির লড়াই৷

এদিকে, মঙ্গলবার গভীর রাতে রাস্তা নির্মাণের ৫০টি গাড়িতে আগুন লাগায় মাওবাদীরা৷ মহারাষ্ট্রের গড়চিরৌলিতে মঙ্গলবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটে৷ রাস্তা তৈরি মেশিনের সঙ্গেই পুড়িয়ে ফেলা হয় বেশ কিছু গাড়ি৷ গড়চিরৌলির কুরখেদা তালুকের দানাপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে৷

পুলিশ সূত্রে খবর, রাস্তা নির্মাণের কাজ ওই এলাকায় বেশ কয়েকদিন ধরেই চলছে৷ রাস্তার ওপরেই রাখা হয়েছিল জেসিবি মেশিন ও বেশ কিছু গাড়িকে৷ ছিল সিমেন্ট ও পাথর বহনকারী ট্রাকও৷ সেই গাড়িগুলিতেই আগুন ধরিয়ে দেয় মাওবাদীরা৷ পাশাপাশি, দাদপুরের পিচ ও কয়লা গলানোর কারখানাতেও হামলা চালায় মাওবাদীরা৷