বেজিংঃ   চিনা সংবাদমাধ্যমের টার্গেটে এবার আমেরিকা! আমেরিকাই নাকি ভারত ও চিনের মধ্যে সামরিক সংঘাত উসকে দিতে চাইছে। সম্প্রতি মার্কিন সংবাদমাধ্যম ‘ওয়াশিংটন এক্সামিনার’-এ সম্প্রতি প্রকাশিত একটি নিবন্ধে বলা হয়-ডোকলাম সীমান্ত অচলাবস্থার ক্ষেত্রে চিনের বিরুদ্ধে ভারতকেই সমর্থন করা উচিত প্রেসিডেন্ট ডোলান্ড ট্রাম্পের। ওই নিবন্ধে এর কারণ হিসেবে বলা হয়, চিনের ক্রমবর্দ্ধমান আগ্রাসন মোকাবিলা ও তাকে প্রতিহত করার ক্ষেত্রে ভারত-মার্কিন সম্পর্কের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এরপরেই চিনের তরফে পালটা আমেরিকাকে কটাক্ষ করা হল। গ্লোবাল টাইমসের পালটা দাবি, আমেরিকাই নাকি ভারত ও চিনের মধ্যে সামরিক সংঘাত উসকে দিচ্ছে।

গ্লোবাল টাইমস-এর অবজার্ভার সেকশনে বুধবার প্রকাশিত নিবন্ধে বলা হয়েছে, যেখানেই সংঘাত দেখা যায়, সেখানে আমেরিকা ঝাঁপিয়ে পড়ে। সমস্যা সমাধানের স্বার্থে আমেরিকা কখনওই নিরপেক্ষ মনোভাব পোষণ করেনি। এক্সামিনার-এ প্রকাশিত নিবন্ধের উল্লেখ করে গ্লোবাল টাইমসে লেখা হয়েছে, ওই নিবন্ধ প্রত্যাশিতভাবেই চিন সম্পর্কে আশঙ্কার বিষয়টি ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে দেখানো হয়েছে এবং ভারত-মার্কিন সম্পর্কের গুণগান করা হয়েছে। এরপর চিনা সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে, এক্সামিনার-এর নিবন্ধে এই পক্ষপাতিত্বে ওয়াশিংটনের অবস্থানেরই প্রতিফলন ঘটেছে। গ্লোবাল টাইমসে আরও বলা হয়েছে, দক্ষিণ চিন সাগর ইস্যুতে ওয়াশিংটন যে অবস্থান নিয়েছে তা ডোকলাম ইস্যুতে ভারতকে সমর্থনে সেই অবস্থানেরই প্রতিফলন ঘটেছে। শুধু তাই নয়, চিনের সংবাদমাধ্যমটিতে বলা হয়েছে, কিছু পশ্চিমী শক্তি ভারত ও চিনের মধ্যে সামরিক সংঘাতের উস্কানি দিচ্ছে। নিবন্ধে আরও বলা হয়েছে, ভারত-চিন সংঘাত থেকে আমেরিকা কোনওভাবেই লাভবান হতে পারবে না। মার্কিন হস্তক্ষেপের কারণে চিন তার আঞ্চলিক অখণ্ডতা রক্ষা থেকে পিছু হঠবে না।