নিম গাছ থেকে বের হচ্ছে বিয়ার! বিশ্বাস হচ্ছে না।  ভাবছেন তো এটা কি বলছি? এমন হয় নাকি? হ্যাঁ, এমনটাই অলৌকিক ঘটনা ঘটতে চলেছে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে৷ অবশ্যই এহেন ঘটনা ঘটছে পাঁচ দশক পুরনো এক নিম গাছ থেকে৷ আর এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই গাছের সামনে ভিড় জমাচ্ছেন আট থেকে ৮০ সব বয়েসি মানুষেরা।

কিন্তু কীভাবে ঘটছে এহেন ঘটনা?  

পুরোন এই নিমগাছ থেকে নিঃসৃত হচ্ছে একধরনের সাদা রঙের পানীয়৷ আর তা খেলেই ধরছে নেশা৷ আর এই নয়া নেশাতেই মজেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া থেকে ছোট-বড় কর্মীরা৷ নতুন এই পানীয়র নাম দেওয়া হয়েছে ‘নিম বিয়ার’৷ নভেম্বর থেকে যা পাওয়া যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাগবি স্টেডিয়ামের পাশের একটি নিম গাছ থেকে৷ প্রথম এই রস খেয়ে দেখেছিলেন ক্যাম্পাসে কাজ করতে আসা এক কর্মী৷ ২ থেকে ৩ গ্লাস খাওয়ার পরই নেশা বোধ করেন তিনি৷ এরপর থেকেই ছড়িয়ে যায় নিম বিয়ার-এর গুণ৷

যদিও এই বিয়ার খেয়ে অসুস্থ হয়েছেন এমন কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি।  ফলে আরও বেশি করেই চলছে এহেন নেশা।  কেউ কেউ তো আবার মজা করে বলতে শুরু করে দিয়েছেন যে, নিমগাছের রস তো! যত খাবে ততই মজবে।  কোনও ক্ষতি নেই।  কারণ সবটাই তো নিম গাছের রস।

সৌজন্যে- হিন্দুস্থান টাইমস

ক্যাম্পাসে শুধু একটা নয়।  এমন আরও ১৫টি নিম গাছ রয়েছে৷ কিন্তু শুধুমাত্র এই গাছটি থেকে বের হচ্ছে এই সাদা তরল৷ কেন এমনটা হচ্ছে তাঁর ঠিকঠাক কোনও কারণ এখনও পর্যন্ত খুঁজে পাননি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা৷ তবে গবেষকদের ধারণা, কোনও ব্যাক্টিরিয়ার কারণে গাছের ভিতরের তরল ফারমেন্টেড হতে শুরু করেছে৷ তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এই তরলের মাদক গুণ কমে আসছে৷ কিন্তু এর জনপ্রিয়তা কমেনি৷ গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়েছে একটি পাত্র৷ যাতে রোজ জমা হয় এই সাদা তরল৷ বহু দূর থেকে পাওয়া যায় এর গন্ধ৷