হাওড়া: প্রতারণার অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেফতার করল হাওড়ার মালিপাঁচঘড়া থানার পুলিশ৷ ধৃতরা হল অনুপম বাছার ও নেপাল মণ্ডল৷ অভিযোগ, মেট্রো রেলে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে বেকার যুবকদের সঙ্গে আর্থিক প্রতারণা করত তারা৷ নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের উত্তর ২৪ পরগণার স্বরূপনগর ও গাইঘাটা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷

রীতিমতো অফিস খুলে ফোনে বেকার যুবকদের চাকরির টোপ দিত তারা৷ পুলিশ জানিয়েছে, মালিপাঁচঘড়া এলাকায় একটি ভুয়ো সংস্থা খোলে তারা৷ এরপর ফোন করে চাকুরি প্রার্থীদের ভালো মাইনের কাজ পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখাত৷ চাকরির আশায় বেকার যুবকরা তাদের সংস্থায় যোগাযোগ করত৷ এরপর শুরু হত টাকা হাতানোর খেলা৷ প্রথমে রেজিস্ট্রেশন বাবদ টাকা আদায় করা হত চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে৷ এরপর ধাপে ধাপে নানা ভাবে টাকা আদায় করত তারা৷ পুলিশের অনুমান এই ভাবে লক্ষাধিক টাকা আত্মসাৎ করেছে তারা৷

এদিকে টাকা দিয়েও প্রতিশ্রুতিমতো চাকরি না মেলায় তাদের নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করে এক চাকরিপ্রার্থী৷ সেই অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার অনুপম ও নেপালকে গ্রেফতার করেছে হাওড়ার মালিপাঁচঘড়া থানার পুলিশ৷ এদের মধ্যে অনুপমের বাড়ি গাইঘাটায়৷ আর নেপালের বাড়ি স্বরূপনগরে৷ আজ রবিবার তাদের হাওড়া আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের ৫ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।