লন্ডন: হার-জিতের প্রসঙ্গ ছিল বলেই ম্যাচের আগাগোড়া টান টান প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছিল৷ পেশাদারিত্বের প্রসঙ্গটা আরও বেশি করে ছিল বলে দু’দলের ডাগ-আউটে উপস্থিত ছিলেন একদা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই চালানো দুই সতীর্থ৷ চূড়ান্ত পেশাদারিত্বের মাঝেও আবেগটা ছিল বলে প্রতিপক্ষ দলের সহকারী কোচকে কুর্নিশ জানাতে কুণ্ঠাবোধ করেনি স্ট্যাম্পফোর্ড ব্রিজ৷

ঘরের মাঠে প্রিমিয়র লিগের ম্যাচে অ্যাস্টন ভিয়ার মুখোমুখি হয় চেলসি৷ ম্যাচের সময় সহকারী কোচ হিসাবে অ্যাস্টন ভিয়ার ডাগ-আউটে উপস্থিত ছিলেন চেলসির প্রাক্তন অধিনায়ক জন টেরি, যাঁকে দ্য ব্লুজরা কিংবদন্তি হিসাবেই বিবেচনা করে৷

আরও পড়ুন: রাশফোর্ডের জোড়া গোলে পুরনো ক্লাবের বিরুদ্ধে হার মোরিনহোর

চেলসির নীল জার্সি তুলে রাখার পর এই প্রথম বার স্ট্যাম্পফোর্ড ব্রিজে পা দিলেন টেরি৷ প্রায় দু’দশক চেলসিতে কাটানোর পর ক্লাব ছাড়ার সময় সমর্থকরা যেভাবে ভালোবাসায় ভরিয়ে দিয়েছিলেন টেরিকে৷ ঠিক সেভাবেই আবার উঠে দাঁড়িয়ে টেরিকে স্ট্যাম্পফোর্ড ব্রিজে স্বাগত জানান দর্শকরা৷ তা সে যতই প্রতিপক্ষ দলের সাপোর্ট স্টাফ হোন না কেন তিনি৷

ম্যাচের শেষে টেরিকে একজন প্রকৃত কিংবদন্তি বলে বর্ণনা করেন চেলসি কোচ ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ড, যিনি টেরির দীর্ঘদিনের সতীর্থ ছিলেন৷ ল্যাম্পার্ড বলেন, ‘স্ট্যাম্পফোর্ড ব্রিজে এসে প্রতিপক্ষের ডাগ-আউটে বসা একটা অদ্ভূত অনুভূতি৷ গত বছর যখন ডার্বির দায়িত্বে ছিলাম, আমার এমন অভিজ্ঞতা হয়েছিল৷ টেরিকে আবার এখানে দেখে দারুণ লাগল৷ সমর্থকরা যেভাবে ওকে স্বাগত জানায়, সেটা ওর প্রাপ্য ছিল৷ টেরি ক্লাবের একজন প্রকৃত কিংবদন্তি৷’

আরও পড়ুন: রুমাল নিয়ে ম্যাজিক দেখিয়ে সেলিব্রেশন বোলারের

ম্যাচে চেলসি ২-১ গোলে পরাজিত করে অ্যাস্টন ভিয়াকে৷ চেলসির হয়ে গোল করেন আব্রাহাম ও মাউন্ট৷ অ্যাস্টন ভিয়ার হয়ে ব্যবধান কমান ত্রেজেগুয়েৎ৷ এই জয়ের সুবাদে চেলসি ১৫ ম্যাচে ২৯ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের চতুর্থ স্থান মজবুত করে৷ সেই সঙ্গে তিন নম্বরে থাকা ম্যাঞ্চেস্টার সিটির ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করে দ্য ব্লুজ৷