মিলান: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী দলের ফুটবলার৷ ৩২ বছরের ব্লেইসে মাতুইদি ২০১৮ বিশ্বকাপজয়ী ফরাসি দলে ছিলেন৷ মঙ্গলবার মেডিকেল টেস্টে করোনাভাইরাস COVID-19 পজিটিভি পাওয়া যায় মাতুইদি’র শরীরে৷

জুভেন্তাসের দ্বিতীয় ফুটবলার হিসেবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন মাতুইদি। সিরি এ-তে গতবারের চ্যাম্পিয়ন ক্লাবে খেলেছেন তিনি৷ তবে মঙ্গলবার বিবৃতিতে জুভেন্তাস ক্লাবের তরফে জানানে হয়েছে, ‘মেডিকেল টেস্টে করোনাভাইরাসে পজিটিভ পাওয়া গিয়েছে মাতুইদিকে। ১১ মার্চ থেকে ঘরে আইসোলেশনে রয়েছেন তিনি। পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে তাঁকে। তবে ভালো রয়েছেন মাতুইদি।’

গত সপ্তাহে জুভেন্তাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন ড্যানিয়েলে রুগানি। এর পরই পুরো জুভেন্তাস দলকেই কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়৷ কিন্তু ফ্রান্সের তারকা মিড-ফিল্ডার মাতুইদিও এই ভাইরাসে আক্রান্ত হন। এছাড়াও জুভেন্তাসের আরও এক ফুটবলার মাতাতুয়া জ্যাককাগনির শরীরেও COVID-19 পজিটিভি পাওয়া গিয়েছে বলেও জানা গিয়েছে৷

এ নিয়ে মোট ১৩ জন সিরি-এ ফুটবলারের মেডিকেল টেস্ট করা হয়েছে৷ বছর চব্বিশের ইতালিয়ান মিড-ফিল্ডার জ্যাককাগনি গত ৮ মার্চ থেকে আইসোলেশনে ছিলেন৷ তাঁর সিরি-এ ক্লাবের তরফে জানানো হয়, জ্যাককাগনির কিছুদিন ধরেই জ্বর ছিল৷ তাই সতর্কতামুলক ব্যবস্থা হিসেবে ওকে আইসোলেশনে রাখা হয়৷ তবে ওই ফুটবলার-সহ পুরো দলকেই ২৫ মার্চ পর্যন্ত আইসোলেশনে থাকার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে৷

করোনাভাইরাসের কারণে ফুটবল দুনিয়া রীতিমতো আক্রান্ত। এক বছরের জন্য পিছিয়ে গিয়েছে ইউরো, কোপা আমেরিকা। লা-লিগা থেকে প্রিমিয়র লিগ৷ সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে গিয়েছে সিরি-এ। স্পেনের ক্লাব ভ্যালেন্সিয়া জানিয়েছে, তাদের দলের ৩৫ শতাংশ ফুটবলার ও স্টাফ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। তবে চিনের পর ইতালিতে ভয়াবহ আকার নিয়েছে এই মারণ ভাইরাস৷ এখনও পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে ইতালিতে আড়াই হাজার জন মারা গিয়েছে৷ আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৩১ হাজার মানুষ৷

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব