মালদহ: স্কুল ছাত্রীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল চার যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের ইংলিশবাজার থানার ফুলবাড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের নতুন নঘড়িয়া গ্রামে৷ ইংলিশবাজার মহিলা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ওই ছাত্রীর পরিবার। ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় এক অভিযুক্তকে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ, মঙ্গলবার রাতে বাড়ির উঠোন থেকে ওই যুবতীকে তুলে নিয়ে যায় এলাকার চার যুবক৷ সেই সময় ওই ছাত্রী বাড়িতে একাই ছিল। বাড়ির পাশে বাগানে নিয়ে গিয়ে ওই যুবতীকে গণধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। পাশবিক অত্যাচারের পর প্রাণে মেরে ফেলার চেষ্টা করে অভিযুক্তরা দাবি পরিবারের। যুবতী চিৎকারের গ্রামের মানুষজন ছুটে এলে অভিযুক্তরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

ওই ছাত্রীর বাবা জানান, তিনি পেশায় টোটো চালক৷ ঘটনার সময় তিনি ও তাঁর স্ত্রী বাড়িতে ছিলেন না৷ তার তিন মেয়ে৷ ঘটনার সময় তারা তিন জনই বাড়িতে ছিল৷ বাকি দুই মেয়ে ঘরে ছিল৷ অপরজন উঠোনে ছিল৷ রনি শেখ, বাবর আলী, রাকিব উদ্দিন মিয়া ও মিন্টু নাদাব তার মেয়েকে মুখে কাপড় চাপা দিয়ে পাশে বাগানে নিয়ে যায়৷ সেখানে গিয়ে ধর্ষণ করে৷ পরে মেরে ফেলার চেষ্টাও করে৷ কিন্তু স্থানীয়দের সহযোগিতায় মেয়ে প্রাণে বেঁচে যায়৷

ঘটনা ইংলিশবাজার মহিলা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে নির্যাতিতার পরিবার। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছ, অভিযুক্তরা হল রনি শেখ, বাবর আলী, রাকিব উদ্দিন মিয়া ও মিন্টু নাদাব। পুলিশ তদন্তে নেমে বৃহস্পতিবার রনি শেখ নামে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে৷ বাকি অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। পাশাপাশি ওই ছাত্রীকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ৷