স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ‘আমি আর ডাকাত পুরমাতার সাথে নেই’- ফেসবুকে তৃণমূলের প্রাক্তন কাউন্সিলরের এমন পোস্ট ঘিরে ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়াল৷ শুক্রবার কলকাতা পুরসভার ৪০ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর স্বপ্না দাসের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দেন ওই ওয়ার্ডেরই প্রাক্তন কাউন্সিলর পার্থ বোস৷ তিনি স্বপ্না দাসের বিরুদ্ধে কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন৷ পুরসভা ভোটের আগে দলের মধ্যে এই কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়াল বলেই মনে করা হচ্ছে৷

এদিন পার্থ বোস বলেন, এই ওয়ার্ডের মানুষ খুব ভালভাবেই জানেন কোন জনপ্রতিনিধি তাঁদের জন্য কাজ করেছেন৷ এখনকার কাউন্সিলর তাঁদের জন্য কি করেছেন সেটাও তাঁরা দেখেছেন৷এটা বলতে পারি, এখন যিনি জনপ্রতিনিধি আছেন তিনি কাটমানি-ব্ল্যাকমানি দুটোই খেয়েছেন৷ আমার বিশ্বাস, আমাদের দলনেত্রী ২০’তে ওঁকে টিকিট দেবেন না৷ পার্থবাবু আরও এক ধাপ এগিয়ে বলেছেন, ওই ওয়ার্ডে ফের স্বপ্না প্রার্থী হলে তিনি নির্দল কাউকে জিতিয়ে আনবেন। পরে তাঁকে তৃণমূলে নেওয়ার জন্য চেষ্টা চালাবেন৷

ফেসবুক পোস্টের বিষয়ে কাউন্সিলর স্বপ্না দাস বলেন, এব্যাপারে আমার মন্তব্য করতে রুচিতে বাঁধে৷ উনি সোশ্যাল মিডিয়ায় এধরনের পোস্ট দিয়ে দলেরই সম্মান নষ্ট করেছেন৷ সেইসঙ্গে কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি৷

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, কলেজ স্ট্রিট লাগোয়া ৪০ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান এবং প্রাক্তন কাউন্সিলরের দ্বন্দ্ব তাঁদের কাছে নতুন কিছু নয়। এই পোস্টের নেপথ্যে কাটমানি নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে বলে জানাচ্ছেন তাঁরা। যদিও এলাকার তৃণমূলের একাংশ মনে করছেন পুরভোটে সম্ভবত এ বারও চল্লিশ নম্বর ওয়ার্ড মহিলা সংরক্ষিত হতে পারে। তাই অন্য ভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন প্রাক্তন কাউন্সিলর পার্থ বোস।

উত্তর কলকাতার কার্যকরী সভাপতি অতীন ঘোষ বলেন, পার্থের সঙ্গে কথা বলব। ও দলের দুর্দিনের কর্মী। পোস্টে যে ধরনের বাক্য ব্যবহার করা হয়েছে, তা অনভিপ্রেত। এ ধরনের মন্তব্য করার ব্যাপারে ওঁর আরও সংযত হওয়া উচিত ছিল।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।