নয়াদিল্লি: পরপর দু’দিন ভারতীয় চলচ্চিত্র জগত থেকে খসে পড়ল দুটি তারা। গতকাল ইরফান খানের পর বৃহস্পতিবার না ফেরার দেশে চলে গেলেন কিংবদন্তি ঋষি কাপুর। জোড়া নক্ষত্রপতনে শোকস্তব্ধ বলিউড ইন্ড্রাষ্টি। কিন্তু ঋষি কাপুরের মতো ভারতীয় সিনেমার কিংবদন্তি আর কেবল চলচ্চিত্র জগতের মধ্যে আটকে থাকতে পারে না। তাই প্রিয় চিন্টু জি’র প্রয়াণে শোকস্তব্ধ ক্রীড়ামহলও।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে লিউকোমিয়ায় আক্রান্ত ঋষি কাপুরকে অসুস্থ অবস্থায় বুধবার ভর্তি করা হয় এইচএনএন রিলায়েন্স হাসপাতালে। বৃহস্পতিবার সকালে ৬৭ বছর বয়সে জীবনযুদ্ধের লড়াইয়ে হাল ছেড়ে দেন বলিউডের প্রথম ‘চকোলেট’ হিরো। ঋষি কাপুরের মৃত্যুর খবর কানে পৌঁছতেই ভেঙে পড়েন অমিতাভ বচ্চন। কিংবদন্তির প্রয়াণে শোকবার্তা জ্ঞাপন করেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

কোহলি লেখেন, ‘এটা বিশ্বাস হচ্ছে না অবাস্তব মনে হচ্ছে। গতকাল ইরফান খান আর আজ ঋষি কাপুর। কিংবদন্তির এই মৃত্যু গ্রহণ করা সত্যিই কঠিন। পরিবারের প্রতি সমবেদনা রইল। ওনার আত্মার শান্তি কামনা করি।’ ববি, চাঁদনি, কর্জ, প্রেমরোগ, অমর আকবর অ্যান্টনি প্রমুখ কালজয়ী ছবিতে অভিনয় করা ঋষি কাপুরের মৃত্যুতে টুইটারে শোকবার্তা জ্ঞাপন করেছেন ভারতীয় দলের কোচ রব শাস্ত্রীও।

শাস্ত্রী লেখেন, ‘মর্মাহত বললেও কম বলা হবে। ঋষি কাপুরের আশেপাশে থাকলে কখনও চুপচাপ মনে হতো না। প্রত্যেকটা মুহূর্ত মাতিয়ে রাখতেন। নীতু জি, রণবীর ও ঋদ্ধিমার জন্য আমার সমবেদনা। ঈশ্বর ওনার আত্মাকে শান্তি দিক।’ কোহলি-শাস্ত্রী ছাড়াও ঋষি কাপুরের মৃত্যুতে এদিন টুইট করেন প্রাক্তন পাক কিংবদন্তি পেসার ওয়াকার ইউনিস। যা বেশ উল্লেখযোগ্য। পাকিস্তানেও অভিনেতা হিসেবে ঋষি কাপুর ঠিক কতটা জনপ্রিয় ছিলেন, ওয়াকারের শোকবার্তা তারই প্রমাণ।

ঋষি কাপুরের প্রতি শোকবার্তায় ওয়াকার লেখেন, ‘মনটা ভেঙে গেল। বিশ্ব সিনেমার জন্য খারাপ একটা সপ্তাহ। তোমার মৃত্যুতে একটা যুগের পরিসমাপ্তি ঘটল। তবে তুমি চিরকাল আমাদের হৃদয়ে থাকবে। কাপুর পরিবারের জন্য আমার গভীর সমবেদনা রইল।’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.