সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা:  প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া উষসী সেনগুপ্তের ঘটনায় আলিপুর আদালত ধৃতদের দু’দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে৷ নড়েচড়ে বসেছে কলকাতা পুলিশও৷ গঠিত হয়েছে কলকাতা পুলিশের বিশেষ তদন্ত কমিটি৷

ধৃতদের সনাক্তকরণের বিষয় উষসী কলকাতা ২৪x৭কে টেলিফোনে জানান, ‘প্রয়োজনে তিনি টিআইপ্যারেডে যাবেন৷ এবং দোষীদের সনাক্ত করবেন৷ তার জন্য তিনি ভয় পান না৷ ছোটবেলা থেকেই প্রতিবাদ করে আসছেন৷ প্রয়োজনে এবারও করবেন৷’

তবে অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে,দোষীদের পুলিশ গ্রেফতার করার পর অভিযোগকারী টিআইপ্যারেডে আসেন না৷ সেক্ষেত্রে অপরাধীরা সহজেই পার পেয়ে যায়৷ এক্ষেত্রে প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া উষসী সেনগুপ্ত ব্যতিক্রম৷ তবে তিনি এটাও জানান, যে সেদিনের ঘটনাটা তার সঙ্গে ঘটেনি৷ এটা কোনও শ্লীলতাহানির ঘটনাও নয়৷ যা ঘটেছে তা আমার ড্রাইভারের সঙ্গে ঘটেছে৷ আমি গাড়িতে বসে না থেকে বাইরে বেড়িয়ে প্রতিবাদ করেছি৷ ইচ্ছা করলে অন্য গাড়িতে পালিয়ে যেতে পারতাম৷ কিন্তু তা করিনি৷ তবে আমি হেনস্থার শিকার হয়েছি৷ আমার ব্যাগের মধ্যে থেকে ফোনটা নেওয়ার চেষ্টা করেছিল৷ কারণ ওই ফোনে ওদের ছবি তোলা হয়েছিল৷

এদিন ধৃত সাতজনকে আলিপুর আদালতে তোলা হয়৷ যাদের বয়স ১৮ তেকে ২৫ বছর৷ পুলিশ আদালতে ধৃতদের পুলিশি হেফাজতের আবেদন করে৷ আদালত সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে আগামী ২১ তারিখ পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে৷ দোষীদের সনাক্তকরণের জন্য টিআই প্যারেডেরও আবেদন করা হয়েছে৷ ধৃতদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ৩৫৪ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে৷ যদিও প্রথমে জামিন যোগ্য ধারায় পুলিশ মামলা করেছিল৷ ৩৫৪ ধারা ছাড়া আরও অনেকগুলো ধারা যুক্ত করা হয়েছে৷

প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া উষসী সেনগুপ্ত আরও জানান, আমার এই প্রতিবাদের একটাই কারণ৷ প্রতিবাদ দেখলেই সবাই তার প্রতিবাদ করতে যাতে সাহস পায়৷ যে ছেলেই হোক বা মেয়ে৷ কোনও পুরুষ যদি হেনস্থার শিকার হন,পাশে যে মেয়েটি দাঁড়িয়ে থাকবে সে যেন তার প্রতিবাদ করতে সাহস পায়৷ সে পরিচিত হউক বা অপরিচিত হউক৷ তাছাড়া আমি ছোটবেলা থেকেই আমার বাবা মাকে প্রতিবাদ করতে দেখেছি৷

ঘটনার রাতে পুলিশের তরফে কোনও গাফিলতি ছিল কিনা তা জানতেই গঠন করা হল তদন্ত কমিটি। ডিসি সাউথ এর নেতৃত্বে গঠিত এই কমিটি৷ সেইসময় যাঁরা যাঁরা নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন, তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করবে ডিসির নেতৃত্বে গঠিত এই তদন্ত কমিটি। শুধু তাই নয় সিসিটিভির ফুটেজও খতিয়ে দেখা হবে। এবং ঘটনাস্থল পরিদর্শনের যাবেন তদন্তকারী দল৷