স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া উষসী সেনগুপ্তকে নিগ্রহের ঘটনায় এই মুহূর্তে তোলপাড় রাজ্য৷ নড়েচড়ে বসেছে কলকাতা পুলিশও৷ ইতিমধ্যেই সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ পাশাপাশি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠিন ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। তবে অভিযোগ উঠেছে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তা নিয়েও৷ খতিয়ে দেখতে গঠিত হয়েছে কলকাতা পুলিশের বিশেষ তদন্ত কমিটি৷

ইতিমধ্যে নিগৃহীতার গোপন জবান বন্দির আবেদন করা হয়েছে৷ অভিযুক্তদের ২৩ শে জুন পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে নেওয়ার আবেদন আলিপুর আদালতে৷ দোষীদের শনাক্তকরণের জন্য টিআই প্যারেডেরও আবেদন করা হয়েছে৷ ধৃতদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ৩৫৪ ধারায় মামলা রুজু৷ এছাড়া আরও অনেকগুলো ধারা যুক্ত করা হয়েছে৷

উষসী সেনগুপ্তকে নিগ্রহের ঘটনায় রাতের কলকাতার নিরাপত্তা নিয়ে ফের প্রশ্ন উঠেছে? এর আগে পার্কস্ট্রিস্ট ধর্ষণ কান্ড নিয়ে তোলপাড় হয়েছিল রাজ্য৷ এরপর কলকাতা পুলিশ বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে৷ বাড়িয়ে পুলিশের টহলদারি৷ তা স্বত্বেও ফের নিগ্রহের ঘটনা ঘটায় উদ্বিগ্ন পুলিশ৷ এমনকি ঘটনার পর অভিযোগ জানাতে গিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধেই অভিযোগের আঙ্গুল তুলেছেন প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া৷ তাই পুলিশের মান বাঁচাতে তৈরি হল তদন্ত কমিটি এমনটাই মত অনেকের৷

ঘটনার রাতে পুলিশের তরফে কোনও গাফিলতি ছিল কিনা তা জানতেই গঠন করা হল তদন্ত কমিটি। ডিসি সাউথ এর নেতৃত্বে গঠিত এই কমিটি৷ সেইসময় যাঁরা যাঁরা নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন, তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করবে ডিসির নেতৃত্বে গঠিত এই তদন্ত কমিটি। শুধু তাই নয় সিসিটিভির ফুটেজও খতিয়ে দেখা হবে। এবং ঘটনাস্থল পরিদর্শনের যাবেন তদন্তকারী দল৷

এছাড়া গতকাল রাতেই উষসী সেনগুপ্ত ও অ্যাপ ক্যাব চালকের বক্তব্য রেকর্ড করেছে চারু মার্কেট থানার পুলিশ। ঘটনার পরে উষসী তার সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, সোমবার রাত ১২টা নাগাদ একটি ক্যাবে চেপে নিজের বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন তাঁরই এক সহকর্মী। এক্সাইড মোড় থেকে এলগিনের দিকে গাড়ি বাঁক নিতেই তাঁদের গাড়িকে অনুসরণ করা শুরু করে কয়েক জন বাইক আরোহী। তারপর আচমকাই তাঁদের গাড়ির উপর চড়াও হয় জনা কয়েক তারা। প্রথমে চালককে নামিয়ে টেনে হিঁচড়ে নামিয়ে মারধর করে তারা। বাধা দিলে কটূক্তি করে উষসীকেও। উষসীর কথায়, ‘‘আমাদের চালক গাড়ির গতি বাড়িয়ে দেয়। শুরুতে জনা চার-পাঁচ যুবক থাকলেও হঠাৎই লক্ষ্য করি আরও কয়েকজন চলে আসে তাদের সঙ্গে। প্রায় ১৫ জনের মতো ছিল।’’ উষসী জানিয়েছেন, গোটা ঘটনাটাই তিনি ভিডিও রেকর্ড করেন।

উষসীর দাবি, ঘটনাস্থলের কাছেই ডিউটিতে ছিলেন দুই পুলিশ কর্তা। সাহায্য চাইলে তাঁরা সাফ জানিয়ে দেন, “আমাদের কিছু করার নেই। এই বিষয়টা আমাদের এক্তিয়ারের মধ্যে পড়ে না।”তিনি বলেন, ওটা ভবানীপুর থানার ঘটনা। আমি হাতজোড় করে অনুরোধ করি, আপনি চলুন, না হলে ড্রাইভারকে মেরে ফেলবে। উনি গিয়ে ওদের বলেন, ঝামেলা করছ কেন? ওরা অফিসারকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। সব কিছু মিটে যাওয়ার পর ভবানীপুর থানা থেকে দু’জন অফিসার গিয়েছিলেন। আমি ভেবেছিলাম আজ সকালে পুলিশে জানাব।’’