প্যারিস: করোনাভাইরাস ক্রমশ গ্রাস করে নিচ্ছে গোটা বিশ্বকে। বাদ যাচ্ছেনা নেতা-মন্ত্রী কেউই। ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এত নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে থাকার পরও নেতা কিংবা সেলিব্রেটিরাও পার পাচ্ছেন না এই ভাইরাসের হাত থেকে। এবার ফ্রান্সের এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল প্রাক্তন মন্ত্রীর।

তিনি ইউরোপের প্রথম বর্ষিয়ান রাজনীতিবীদ যাঁর এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল। রবিবার সকালে মৃত্যু হয় ৭৫ বছরের প্যাট্রিক নামে ওই নেতার। কয়েকদিন আগেই টুইট করে তিনি লিখেছিলেন, ‘ক্লান্ত লাগছে কিন্তু ভালো আছি।’ এরপরই তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় ও অবশেষে মৃত্যু।

ফ্রান্সের এন্টনি হসপিটালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। গত বুধবার থেকে সেখানে চিকিৎসা চলছিল তার। ওই রাজনীতিবিদের শরীরের অন্য কোন রোগ ছিল জানা যায়নি। কিন্তু শনিবার থেকে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে।

চিকিৎসকরা তাঁকে আর্টিফিশিয়াল কমায় রেখে চিকিৎসা শুরু করেন। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি, চিকিত্সায় সাড়া দেননি তিনি।

আক্রান্ত হওয়ার পরও নিজের শারীরিক অবস্থার কথা ট্যুইট করে নিজেই জানাচ্ছিলেন তিনি। চিকিৎসক ও নার্সদের ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন তিনি। তাদের সেবায় তিনি ভালো আছেন বলেও উল্লেখ করেছিলেন।

প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস এর সময়ে একাধিক মন্ত্রিত্ব সামলেছেন তিনি। ইউরোপ জুড়ে বহু রাজনৈতিক এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। বাদ যাননি ৭৫ বছরের প্যাট্রিক।

সম্প্রতি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক এই ভাইরাসে আক্রান্ত।

প্যাট্রিকের মৃত্যুতে শোকাহত সেখানকার রাজনৈতিক মহল। নেতারা বলছেন তিনি চিরকাল মনে রাখার মত একজন মানুষ। তাঁর বুদ্ধিমত্তার প্রশংসা করেছেন অনেকেই।

শনিবার রাতে ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন এখনো পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ফ্রান্সে ২৩১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মাত্র ২৪ ঘণ্টায় ৩১৪ জনের মৃত্য হয়েছে সে দেশে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।