কলকাতা: আইপিএলে শহর কলকাতার ফ্র্যাঞ্চাইজি দলের চিফ মেন্টর তিনি। করোনার জেরে আইপিএল স্থগিত হয়ে যাওয়ায় আপাতত নিজের দেশে তিনি। তবে নিয়মিত যোগাযোগ রেখে চলেছেন ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে। জানতে পেরেছেন ২০মে কলকাতা সহ পশ্চিমবাংলায় ঘটে যাওয়া ভয়ঙ্কর সাইক্লোন আমফানের তান্ডব সম্পর্কে। তাই আমফানে বিপর্যস্ত কলকাতার হয়ে প্রার্থনা জানালেন নাইটদের মেন্টর ডেভিড হাসি।

শুক্রবার সকালে বিপর্যস্ত তিলোত্তমার পাশে দাঁড়িয়ে সুদূর অস্ট্রেলিয়ায় বসে একটি টুইট করেন প্রাক্তন অজি ক্রিকেটার। হাসি লেখেন, ‘আবহাওয়ার খামখেয়ালিপনায় ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্থ কলকাতার মানুষের জন্য আমার প্রার্থনা এবং সমবেদনা। অনেক অনেক ভালোবাসা।’ উল্লেখ্য, বুধের সন্ধেয় সাইক্লোন আমফানে তান্ডব চালায় ওডিশার উপকূলবর্তী অঞ্চল এবং সমগ্র পশ্চিমবঙ্গে। আশ্রয়হীন হাজার-হাজার মানুষ। সাইক্লোনে বাংলায় মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় ৮০। মাটির বাড়ি থেকে প্রাসাদোপম অ্যাপার্টমেন্ট, আমফানের রোষ থেকে রেহাই পায়নি কেউই।

এমন সময় বৃহস্পতিবার আমফানে বিপর্যস্ত বাংলার জন্য সমবেদনা জ্ঞাপন করেছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। টুইট করেছেন রবীন্দ্র জাদেজাও। কোহলি লেখেন, ‘আমফানে ক্ষতিগ্রস্থ ওডিশা এবং পশ্চিমবঙ্গের মানুষের প্রতি আমার সমবেদনা। ঈশ্বর সকলকে রক্ষা করুক। খুব শীঘ্রই সবকিছু আবার স্বাভাবিক হয়ে উঠুক।’ জাদেজা লেখেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ এবং ওডিশার মানুষের নিরাপত্তার জন্য প্রার্থনা করছি। কঠিন সময় যারা প্রিয়জনদের হারিয়েছেন তাদের প্রতি আমার সমবেদনা রইল।’

শুক্রবার সকালে কপ্টারে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সঙ্গে আমফান বিধ্বস্ত বাংলার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আমফান বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করে বাংলার জন্য ১হাজার কোটি টাকার অনুদান ঘোষণা করেন তিনি। কঠিন সময় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে ফোন করে ঘূর্ণিঝড় আমফানের কারণে যে ক্ষতি হয়েছে তার খোঁজ নিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সমবেদনাও জানান তিনি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।