নয়াদিল্লি: আরটিআই আন্দোলনকর্মী অমিত জেঠওয়া হত্যা মামলার প্রধান অভিযুক্ত তথা প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ দিনু সোলাঙ্কি সহ ছয়জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা দিল আহমেদাবাদ সিবিআই কোর্ট। ২০১০ সালের ২০ শে জুলাই, গুজরাট হাইকোর্টের বাইরে জেঠওয়াকে গুলি করে খুন করা হয়। প্রকাশ্যেই এই খুনের ঘটনায় জড়িয়ে যায় ক্ষমতাসীন দল বিজেপি নেতার নাম৷ সেই মামলায় সিবিআই-এর বিশেষ কোর্ট প্রাক্তন সাংসদ দিনু বঘা সোলাঙ্কিকে অভিযুক্ত ঘোষণা করে। তিনি জুনাগড়ের প্রাক্তন সাংসদ৷

কি ঘটেছিল ?
দুই দুষ্কৃতী ২০১০ সালের ২০ শে জুলাই, গুজরাট হাইকোর্টের বাইরে অমিত জেঠওয়াকে খুন করে। তিনি বিখ্যাত গির অরণ্যের বেআইনি খাদানের বিষয়ে আরটিআই করেছিলেন। এই তথ্য ও পরে আরও কিছু সূত্র ধরে উঠে আসে সোলাঙ্কির নাম৷ মূল তথ্যপ্রমাণ উঠে আসে কল-ডেটা রেকর্ডস থেকে৷

গুজরাটের গির অরণ্য এশিয়াটিক লায়নের জন্য বিশ্ববিখ্যাত। তারই মধ্যে বেআইনি খাদান চালানোর ঘটনা সামনে এনেছিলেন সমাজকর্মী অমিত জেঠওয়া৷ এর পরেই তাঁকে গুলি করে খুন করা হয়৷ সেই মামলায় সিবিআই বিশেষ আদালতের বিচারক কেএম দাভে সোলাঙ্কিসহ সাতজনকে অভিযুক্ত ঘোষণা করে। সোলাঙ্কির বিরুদ্ধে সিবিআই তথ্যপ্রমানসহ জেঠওয়া খুনে অভিযুক্ত করে ।

যেহেতু গির অরণ্যে প্রবেশ নিষিদ্ধ৷ এবং এটি বিশ্বের অন্যতম বণ্যপ্রাণী এশিটিক লায়নের জন্য বিখ্যাত৷ ফলে চোরাশিকারিদের লক্ষ্য এই অরণ্যের বণ্যপ্রানী৷ আর অমিত জেঠওয়া এই এলাকার বেআইনি খাদান ব্যবসার ঘটনাকে ফাঁস করে দিয়েছিলেন। তবে হাল ছাড়েনি জেঠওয়া পরিবার৷ পুত্রকে ফাঁসানো হচ্ছে এমনই পাল্টা দাবি করেছেন তাঁরা৷ এমনকি অভিযুক্ত শোলাঙ্কির বিরুদ্ধে সামাজিক মাধ্যমে অনেকে উদ্বেগ প্রকাশ করেন৷

ঘটনা মোড় নেয় আরও৷ এবার সুপ্রিম কোর্ট এই চাঞ্চল্যকর খুনের মামলায় পুনরায় পিটিশন দাখিল করে তদন্ত শেষ করতে নির্দেশ দেয়৷