নয়াদিল্লি: ‘মিশন শক্তি’ নিয়ে কংগ্রেসের হাটে হাড়ি ভাঙলেন প্রাক্তন ডিআরডিও প্রধান ডঃ ভি কে সরস্বত৷ তাঁর দাবি, ইউপিএ সরকার ‘মিশন শক্তি’র কাজ আটকে দিয়েছিল৷ সরকার যদি তখন সাহস দেখাত তাহলে চার-পাঁচ বছর আগেই এই নজির তৈরি করতে পারত ভারত৷

মহাকাশে নজির গড়েছে ভারত। বিশ্বের চতুর্থ দেশ হিসেবে মহাকাশে স্যাটেলাইট ধ্বংস করল ভারতীয় মিসাইল। ভোটের মুখে এই মিশনের কৃতিত্বের দাবি জানাচ্ছে দুই যুযুধান দল৷ বিজেপি ‘মিশন শক্তির’ সফলতার জন্য মোদীকে কৃতিত্ব দিচ্ছে৷ অপরদিকে কংগ্রেস দাবি জানিয়েছে, এই মিশনের অনুমোদন ইউপিএ সরকার দিয়েছিল৷ কিন্তু বুধবার ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনের(ডিআরডিও) প্রাক্তন প্রধান ডঃ ভি কে সরস্বত কংগ্রেসের দাবিকে খণ্ডন করে দিয়েছেন৷ জানিয়েছেন, ইউপিএ সরকারই প্রজেক্টের কাজ বন্ধ করে দিতে বলেছিল৷

সৌজন্যে এএনআই

ভি কে সরস্বত যা জানিয়েছেন তা কংগ্রেসকে অস্বস্তিতে ফেলে দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট৷ সংবাদসংস্থা এএনআইকে তিনি বলেন, ‘‘যখন মহাকাশে মিশাইল পাঠিয়ে স্যাটেলাইট ধ্বংস করা নিয়ে আলোচনা চলছিল তখন আমরা প্রেশেনটেশন তৈরি করি৷ সেই প্রেশেনটেশন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ও জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদকে দেখানো হয়৷ সবাই প্রথমে আগ্রহ দেখায়৷ কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমরা সরকারের তরফে কোনও ইতিবাচক সাড়া পাইনি৷ তাই এই প্রজেক্ট তখন দিনের আলো দেখেনি৷’’

তাঁর আরও সংযোজন, বর্তমান ডিআরডিও প্রধান ডঃ সতীশ রেড্ডি আরও একবার এই প্রজেক্টের কাজ শুরু করতে উদ্যোগী হন৷ তিনি জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা প্রধান অজিত দোভাল ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে প্রেশেনটেশনটি দেখান৷ সরকার এবার সাহসের সঙ্গে ডিআরডিওকে নির্দেশ দেয় এগিয়ে যাওয়ার৷ আক্ষেপের সঙ্গে তিনি জানান, ইউপিএ সরকার যদি সাহস দেখাতো তাহলে ২০১৪-১৫ সালে এই সফলতা অর্জন করা যেত৷ এতদিন অপেক্ষা করতে হত না৷