নয়াদিল্লি: ২৬/১১ মুম্বই হামলার ছক কষা হয়েছিল পাকিস্তানের মাটি থেকেই৷ এমন অভিযোগ ভারত বরাবরই করে এসেছে। তবে হামলার কয়েক বছর পর সেকথা স্বীকার করে নিয়েছিলেন পাকিস্তানের ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির (এফআইএ) প্রাক্তন ডিরেক্টর জেনারেল তারিক খোসা৷

তিনি দাবি করেছিলেন, ২৬/১১-র হামলায় দোষী সাব্যস্ত আজমল কাসব পাকিস্তানেরই নাগরিক এবং সিন্ধু প্রদেশের থাট্টায় বিভিন্ন শিবিরে এই হামলার সঙ্গে জড়িত জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দিয়েছিল লস্কর-ই-তইবা৷ তাদের ভুলগুলি স্বীকার করার পাশাপাশি পাকিস্তানকে সত্যের মুখোমুখিও হতে হবে বলে পরামর্শও দিয়েছিলেন খোসা৷ লস্করের জঙ্গি প্রশিক্ষণ শিবির থেকেই মুম্বই হামলায় ব্যবহৃত বিস্ফোরক উদ্ধার হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি৷

২০১৫ সালে পাক সংবাদ মাধ্যম ‘ডনে’ খোসা ‘মুম্বই অ্যাটাকস ট্রায়াল’ শিরোনামে একটি আর্টিকল লিখেছিলেন, তার ছত্রে ছত্রে ২০০৮ সালের মুম্বই হামলার সঙ্গে পাক যোগের কথা স্পষ্ট ছিল৷ লেখাটিতে পাকিস্তানের প্রাক্তন গোয়েন্দা কর্তা সাতটি দাবি করেন:

তাঁর দাবিগুলি ছিল-

১. আজমল কাসব পাকিস্তানের বাসিন্দা এবং নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনে তাঁর যোগ দেওয়ার কথা তদন্তে উঠে এসেছে৷
২. সিন্ধু প্রদেশের বিভিন্ন ক্যাম্পে প্রশিক্ষণ দিয়েছিল লস্কর-ই-তইবা৷
৩. যে মাছ ধরার ট্রলারটি ব্যবহার করা হয়েছিল তা পাকিস্তানে ফেরত এনে রঙ করে লুকানোর চেষ্টা করা হয়েছিল৷ কিন্তু তা তদন্তকারীদের চোখ এড়ায়নি৷

৪. করাচির কন্ট্রোল রুম থেকেই পুরো হামলাটি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছিল৷ ভয়েস-ওভার ইন্টারনেট প্রোটোকলের মাধ্যমে জঙ্গিদের সঙ্গে যে যোগ রাখা হয়েছিল, তদন্তে তাও স্পষ্ট হয়েছে৷
৫. অভিযুক্ত কমান্ডার ও তার সহযোগীকে চিহ্নিত ও গ্রেফতার করা হয়৷

৬. মুম্বই বন্দরের কাছে সন্ত্রাসবাদীদের যে জলযানটি পরিত্যক্ত অবস্থায় মেলে, তাতে একটি পেটেন্ট নম্বর ছিল৷ সেই নম্বরের সূত্রে তদন্ত চালিয়ে গোয়েন্দারা জানতে পারেন, ওই ইঞ্জিন জাপান থেকে লাহোরে আমদানি হয়েছিল, তার পর তা গিয়েছিল করাচির একটি ক্রীড়া সরঞ্জামের দোকানে৷ সেখান থেকে লস্কর-ই-তোইবার এক জঙ্গি ওই জলযানের সঙ্গে ইঞ্জিনটি ক্রয় করে৷
৭. বিদেশে অবস্থানরত দুই আর্থিক সহায়তাকারী ও মদতদাতাকে এই সূত্রে গ্রেফতার করা হয় এবং মোকদ্দমায় হাজির করার জন্য নিয়ে পাকিস্তানে আসা হয়৷

এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পরই ভারতে নানা প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়৷ ঠিকঠাক তদন্ত হলে বহু আইএসআই অফিসারকে জেলে যেতে হত, এমনটাই প্রতিক্রিয়া দেয় ভারত