ঢাকা:  রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ প্রাক্তন বাংলাদেশি কূটনীতিক ৷ তাঁর অন্তর্ধান ঘিরে ক্রমশ জটিলতা বাড়ছে৷ নিখোঁজ ওই কূটনীতিকের নাম মারুফ জামান৷ তিনি ভিয়েতনাম ও কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রদূত৷ গত সোমবার রাত থেকে তাঁকে পাওয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

মঙ্গলবার দুপুরে মারুফ জামানের মেয়ে সামিহা জামান ঢাকার ধানমন্ডি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন৷ জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে মেয়েকে আনতে বিমানবন্দরে গিয়েছিলেন তিনি৷ এরপর থেকে আর তিনি বাড়ি ফেরেননি।

তদন্তে উঠে এসেছে, গত সোমবার সন্ধ্যা নাগাদ মারুফ জামান তাঁর ধানমন্ডির বাড়িতে টেলিফোন করেন৷ গৃহপরিচারিকা টেলিফোন ধরলে মারুফ জামান তাঁকে বলেন, কিছুক্ষণ পরে কয়েকজন যাবে। তাদের হাতে যেন তাঁর ব্যবহৃত ল্যাপটপটি যেন দিয়ে দেওয়া হয়। কিছুক্ষণ পরেই প্রাক্তন কূটনীতিকের বাড়িতে যায় তিন ব্যক্তি৷ তাদের মাথায় ক্যাপ ও মুখে সার্জিক্যাল মাস্ক ছিল৷ নির্দেশমতো ওই তিন ব্যক্তি মারুফ জামানের ল্যাপটপ, কম্পিউটারের সিপিইউ, ক্যামেরা ও স্মার্টফোন নিয়ে চলে যায়৷

পড়ুন: বাংলাদেশে শতাধিক মানুষকে অপহরণ করা হয়েছে: রিপোর্ট

এদিকে ঢাকা বিমান বন্দরে অপেক্ষা করে বাবাকে না পেয়ে একাই বাড়ি চলে আসেন মারুফ জামানের ছোট মেয়ে সামিয়া জামান। সারা রাত তাঁর ফোন বন্ধ থাকায় তিনি উদ্বিগ্ন হয়ে তাঁর অভিযোগ পেয়েই তদন্ত শুরু করে পুলিশ৷ মঙ্গলবার নিখোঁজ কূটনীতিকের ব্যবহৃত গাড়ি পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে৷

কোনও গোষ্ঠী কি কূটনীতিককে অপহরণ করেছে ? নাকি এর পিছনে রয়েছে কোনও জঙ্গি চক্রান্ত? এমনই সব প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ ঢাকা মহানগর পুলিশের জঙ্গি দমন শাখা সিটিটিসি (কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট) প্রধান মনিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, মারুফ জামান নিখোঁজের বিষয়ে ধানমণ্ডি থানা পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। আর একই সাথে আমরাও বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করব।

- Advertisement -