শংকর দাস, বালুরঘাট: পাকিস্তানকেই শুধু নয়। বিশ্বের তাবড় দেশগুলিকেও পরাস্ত করতে ভারতীয় সেনা বাহিনী যথেষ্ট সক্ষম। আজ পর্যন্ত পাকিস্তান বার বার যুদ্ধের জন্য উসকেছে। প্রত্যুত্তরে পাকিস্তানকে গুড়িয়ে খতম করে দেওয়ার সুযোগ পেয়েও রাজনৈতিক প্রতিবন্ধকতার কারণে ভারতীয় সেনা তা আর করতে পারেনি।

যার ফল আজ ভোগ করতে হচ্ছে দেশকে। এই ভাষাতেই আক্ষেপ প্রকাশ করলেন দেশের হয়ে তিন তিনবার শত্রুর বিরুদ্ধে যুদ্ধে অবতীর্ণ বিমান বাহিনীর প্রাক্তন ফ্লাইং অফিসার নীলমণি পাণ্ডে। দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে অনুষ্ঠিত হয়েছে ইন্ডিয়ান এক্স-সার্ভিস লীগের ৩৭ তম বার্ষিক সম্মেলন। স্থানীয় নাট্যমন্দিরে আয়োজিত সেই সম্মেলন অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালদহ জেলা সংগঠনের সচিব তথা বিমান বাহিনীর প্রাক্তন ফ্লাইং অফিসার নীলমণি পাণ্ডে।

শহিদ জওয়ানদের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করতে গিয়ে তিনি বলেন সেদিনের ঘটনায় শুধু দেশের পাশাপাশি তাঁরও রক্তক্ষরণ হয়েছে। তিনি একথাও জানান যে তিনি শত্রুর বিরুদ্ধে তিন তিনটে যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। যত বার পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ হয়েছে ততবারই পাকিস্তানকে গুড়িয়ে দেওয়ার সুযোগ পেয়েও রাজনৈতিক প্রতিবন্ধকতায় তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। যার ফল আজ ভোগ করতে হচ্ছে বলেও তিনি প্রকাশ করেছেন।

কাশ্মীরে শান্তি ফিরিয়ে আনার কাজে বহুদিন আগেই পূর্ণ স্বাধীনতা চেয়েছিল সেনাবাহিনী। কিন্তু তখন তা দেওয়া হয়নি। সেনা বাহিনীকে সেই স্বাধীনতা দেওয়া হলে বোমা গুলি তো দূর পাথরও কেউ ছোড়ার সাহস দেখতে পারত না সেখানে। এমনটাই অভিযোগ করলেন প্রাক্তন সেনা সংগঠনের ভাইস প্রেসিন্ডেন্ট।

ইন্ডিয়ান এক্স-সার্ভিস লীগের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট অনিমেষ ঘোষ পুলওয়ামারার ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, দেশের সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত বহুদিন আগেই কাশ্মীরের পাথর নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে একশন নেওয়ার জন্য সেখানে জওয়ানদের পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়ার আবেদন করেছিলেন। কিন্তু দেশের সরকার রাজনৈতিক কারণে তখন সেই অনুমতি দেয়নি বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। পুলওয়ামারার ঘটনার পর দেশের সরকার এতদিনে সেই স্বাধীনতা সেনা বাহিনীকে দিল।

এদিন এক্সসার্ভিস লীগের সম্মেলনে হাজির হয়ে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার ঘটনার বদলা নেওয়ার প্রসঙ্গে বলেন, আগেই অ্যাটাক ঠিক হবে না। আগে পাকিস্তানকে সাবধান করা ও সেই সঙ্গে বিদেশি রাষ্ট্রগুলিকে ভারতের সমর্থনে একত্রিত করা। কারণ কোন দেশ আক্রমণে বৈদেশিক বেশ কিছু নিয়মনীতি রয়েছে। তার পরেই একশন শুরু করতে হবে। এই বিষয়ে দেশের সরকার সঠিক ভূমিকাই এই মুহূর্তে পালন করছে।

বালুরঘাট নাট্যমন্দিরে আয়োজিত সম্মেলনে দেশের প্রাক্তন এই সেনা আধিকারিক গদ্দারদের প্রসঙ্গেও বলতে ছাড়েননি। তিনি বলেন যাঁরা উলটে দেশের জওয়ানদের বিরুদ্ধে কথা বলছেন সেই সমস্ত গদ্দারদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নিতে হবে। এদিন সকালে ইন্ডিয়ান এক্স-সার্ভিস লীগের তরফে শহিদ জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বালুরঘাট শহরে মৌন মিছিলও করেন প্রাক্তন সেনা ও তাঁদের পরিবারের সদস্যরা।