স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে দেশ তথা রাজ্যে চলছে লকডাউন। আর এই লক ডাউনের ফলে কাজ হারিয়ে সমস্যায় পরেছেন ভিন রাজ্যে কাজ করতে যাওয়া বহু পরিযায়ী শ্রমিকরা।

কাজ হারিয়ে অনাহারে দিন কাটাতে না পেরে অনেকেই দিনের পর দিন পায়ে হেঁটে এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে নিজেদের বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন। ফলে রাস্তায় মৃত্যু ও হচ্ছে অনেকের।

কিন্তু এই এক অবস্থা যাতে উত্তর ২৪ পরগনায় কাজ করতে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের না হয় তার জন্য সক্রিয় ভূমিকা গ্রহন করলো উত্তর ২৪ পরগনার জেলা প্রশাসন।আর রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে কংগ্রেস ও তৃণমূল দলের কর্মীরা প্রশাসনের সহযোগীতায় প্রায় ৫০ জন পরিযায়ী শ্রমিকদের দায়িত্ব নিয়ে তাঁদেরকে নিজ রাজ্যে পৌঁছে দেওযার ব্যবস্থা করলেন।

বৃহস্পতিবার উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুর শিল্পাঞ্চলে কাজ করতে আসা ৫০জন পরিযায়ী শ্রমিককে প্রশাসনিক সহযোগিতায় পশ্চিমবঙ্গ পরিবহন সংস্থার বাসে তুলে বিহার ও ঝাড়খন্ডে তাঁদের নিজেদের রাজ্যে পাঠিয়ে দেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। দু’পয়সা বেশি রোজগার করার আশায় এই ৫০ জন পরিযায়ী শ্রমিক ঝাড়খণ্ড আর বিহার থেকে উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুর শিল্পাঞ্চলের ইছাপুরে এসেছিলেন।

কিন্তু লক ডাউনের ফলে কাজ হারিয়ে আটকে পরেছিলেন তারা। জমানো টাকা যা ছিল তাও শেষ হয়ে গিয়েছিল। ফলে অনাহারে দিন কাটছিল তাদের। কিন্তু পরিযায়ী শ্রমিকদের এই পরিস্থিতির কথা জানতে পেরে নোয়াপাড়া তৃণমূল কংগ্রেস ও নোয়াপাড়া যুব কংগ্রেসের কর্মীরা রাজনৈতিক মতভেদ ভুলে একসঙ্গে তাঁদের পাশে এসে দাঁড়ান।

তৃণমূল কংগ্রেস ও কংগ্রেস দলের পক্ষ থেকে ওই সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের দুবেলা দুমুঠো খাওয়ার ব্যবস্থাও করা হয়েছিলো। তবে ওই সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকরা যাতে সুস্থ ভাবে নিজেদের বাড়ি ফিরে যেতে পারেন তার জন্য দুই রাজনৈতিক দলের কর্মীরাই একযোগে পুলিশ প্রশানসনের দ্বারস্থ হন।

পুলিশ প্রশাসনও এগিয়ে এসে ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে দেয় এবং দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রিয় পরিবহন সংস্থার ২টি বাসের মাধ্যমে তাঁদের বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

পরিযায়ী শ্রমিকরা তাদের নিজেদের বাড়ি যেতে পেরে খুবই খুশি। তারা বলেন “আমাদের কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ফলে ঠিকমত খেতেও পাচ্ছিলাম না। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস ও কংগ্রেসের কর্মী দাদারা আমাদের অনেক সাহায্য করেছেন। আর পুলিশ প্রশাসনকেও অনেক ধন্যবাদ জানাই আমাদেরকে নিরাপদে বাড়ি ফিরে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য।”

ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর সময় কংগ্রেস কর্মী ও তৃণমূল কর্মীরা বলেন “এখন যা পরিস্থিতি তাতে রাজনীতিকে দূরে রেখে মানবিকতা কে সামনে রেখে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতে হবে। আমরা সবাই মিলে তাই করেছি। আমরা চাই পরিযায়ী শ্রমিকরা নিরাপদে তাদের বাড়ি ফিরে যান।” বৃহস্পতিবার ওই ৫০ জন পরিযায়ী শ্রমিকদের কে তাদের বাড়ি পাঠাবার আগে প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের সমস্ত শারীরিক পরীক্ষা করে দেখা হয়।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প