স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : হাওড়া, কলকাতা, পূর্ব মেদিনীপুর ও পশ্চিম মেদিনীপুরে বজ্রবিদ্যুত সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে তা আগেই জানিয়েছিল হাওয়া অফিস। সেই অনুযায়ী বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে চার জেলায়।

কলকাতার আভাওয়ার দিকে নজর রাখলে দেখা যাচ্ছে। সোমবার দিনভর মেঘলা আকাশ থাকলেও বৃষ্টি হল না। ফলে কলকাতায় জারি থাকল অস্বস্তিকর আবহাওয়া। আজ মঙ্গলবারও যা একইরকম রয়েছে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ফের বেড়েছে। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা গত ২৪ ঘণ্টায় কম থাকলেও। আজ বৃষ্টি না হলে ফের তা বৃদ্ধি পেতে পারে।

আজ মঙ্গলবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে আক ডিগ্রি বেশি। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। সর্বোচ্চ আর্দ্রতার পরিমান ৯৪ শতাংশ সর্বোচ্চ ৭৬ শতাংশ। বৃষ্টি হয়েছে ছিটেফোঁটা। দমদম , সল্টলেক কোথাও বৃষ্টি হয়নি।

আজ তাপমাত্রা থাকবে সর্বোচ্চ ৩৩ সর্বনিম্ন ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে। এদিকে হাওয়া অফিস জানাচ্ছে , দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে কয়েকটি জেলায়। কলকাতা-সহ বাকি জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। বাতাসে জলীয় বাষ্প থাকায় আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি জারি থাকবে।

প্রসঙ্গত , আগামী কয়েকদিনে বৃষ্টি কমতে পারে উত্তরবঙ্গেও। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। কারণ মৌসুমি অক্ষরেখা দক্ষিণ পশ্চিমে সরে গিয়ে অবস্থান করছে দুমকা ও ক্যানিং-এর উপর। এর ফলেই আগামী কয়েকদিনে বৃষ্টির পরিমান অল্প কমতে পারে উত্তরবঙ্গে। তবে একেবারেই যে তা কমে আসবে তা নয়।

১৪ জুলাই আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহারের কিছু কিছু স্থানে ৭০ থেকে ১৯০ মিলিমিটার অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে। দার্জিলিং, কালিম্পং ও জলপাইগুড়ির কিছু স্থানে ৭০ থেকে ১১০ মিলিমিটার ভারী বৃষ্টি হতে পারে। বাকি জেলায় অল্প বিস্তর বৃষ্টি চলবে। ভারী ও অতিভারী বৃষ্টি সম্পন্ন জেলায় কমলা সতর্কতা জারি করে রাখা হয়েছে।

১৫ জুলাই আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহার, দার্জিলিং, কালিম্পং ও জলপাইগুড়িতে ৭০ থেকে ১১০ মিলিমিটার ভারী বৃষ্টি হতে পারে। কমলা সতর্কতা জারি করে রাখা হয়েছে এদিনের জন্যেও। এদিকেএই বৃষ্টিতে স্বাভাবিকভাবেই জল বাড়বে নদীগুলিতেও। সে জন্য কৃষক এবং মৎস্যজীবিদের সাবধানতা অবলম্বনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ