ফাইল ছবি৷

ভোপাল: রাজনীতির ময়দানে মুখ্যমন্ত্রীদের ভাইপোরা এখন দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন৷ লোকসভা ভোটে মুখ থুবড়ে গেলেও ক্ষমতার দম্ভ অটুট কংগ্রেস নেতা ও তাদের পরিজনদের৷ সেই দম্ভ দেখালেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথের ভাইপো৷

আরও পড়ুন: রাস্তা খারাপ, ইঞ্জিনিয়ারকে কান ধরে ওঠ বোস বিজেডি বিধায়কের

সাঁই সাঁই করে ছুটে চলেছে বিশাল গাড়ির কনভয়৷ গন্তব্যস্থল উজ্জয়ীনি৷ সেখানেই রয়েছে বিখ্যাত মহাকালেশ্বর মন্দির৷ বিখ্যাত সেই মন্দির দর্শনে বেরিয়েছেন কমলনাথের ভাইপো এবং ভাইঝি৷ মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের সদস্য বলে কথা! তাদের সঙ্গে ভিআইপিদের মতোই খাতির যত্ন করা হল৷ আর এতেই উঠছে নানা প্রশ্ন৷ মুখ্যমন্ত্রী প্রশাসনের দণ্ডমুণ্ডের কর্তা৷ তিনি ভিআইপি নিরাপত্তা পাওয়ার অধিকারী৷ কিন্তু তার পরিজনেরা তো আর কোনও সরকারি পদে নেই৷ তাহলে কিসের এত ভিআইপি আপ্যায়ন?

মঙ্গলবার কমলনাথের পরিজনেরা মহাকালেশ্বরের মন্দিরে যান৷ তাদের কনভয়ে মোট ছ’টি গাড়ি ছিল৷ তিনটি ছিল পুলিশের গাড়ি৷ অবাক করা খবর হল, কনভয়ের মধ্যে ছিল একটি অ্যাম্বুলেন্স৷ মহাকালেশ্বর মন্দিরে যাওয়ার আগে দু’জনে মঙ্গলনাথ মন্দিরে যান৷ সেখানে পুজো সেরে উজ্জয়িনী রওনা দেন৷ মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের সদস্যদের আসার কথা আগে থেকে স্থানীয় প্রশাসনের জানা ছিল৷ তবে কারা আসছেন সেটা তাদের জানা ছিল না৷ তবে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছিল৷ দুটি মন্দিরে চোখে পড়ার মতো পুলিশ মোতায়েন করা হয়৷

আরও পড়ুন: পাকিস্তানের মাটিতে গরিবদের জন্য কল বসালেন ভারতীয় ব্যবসায়ী

মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের সঙ্গে ভিআইপি সুলভ আচরণের বিষয়টি বিরোধীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে৷ বিজেপির অভিযোগ, সরকারি নিয়ম অনুযায়ী মন্ত্রীর আত্মীয়দের সরকারি নিরাপত্তা পাওয়ার কথা নয়৷ সেরকম হলে তা অনৈতিক এবং ক্ষমতার অপব্যবহার বলেই ধরা হবে৷ যদিও বিজেপির অভিযোগ উড়িয়ে কংগ্রেস মুখপাত্র পঙ্কজ চতুর্বেদী জানান, কাকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দেওয়া হবে সেটা স্থানীয় প্রশাসন ঠিক করে৷ এক্ষেত্রে স্থানীয় প্রশাসনের যেটা মনে হয়েছে তাই করা হয়েছে৷

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব