জানুয়ারী মাস প্রায় শেষ৷ আর ফেব্রুয়ারী মাসের শুরুতেই বাঙালির ভ্যালেন্টাইন ডে৷ সরস্বতী পুজো৷ প্রেম জমে ক্ষীর৷ এর ঠিক পর পরই আবার ১৪ই ফেব্রুয়ারী বিশ্ব প্রেম দিবস৷ সুন্দরী রমনীদের আরও সুন্দর হয়ে ওঠার দিন৷ রোজনামচা সৌন্দর্য ছেড়ে  এদিনের জন্য চাই স্পেশাল কেয়ার৷ যাতে সবার মাঝে আপনাকে মনে হয় অদ্বিতীয়া৷ তাই স্পেশাল দিনের স্পেশাল বিউটি রেজিম রইল আপনাদের জন্য৷

  • এক্সফোলিয়েশন ও হাইড্রেশন হল উজ্জ্বল ত্বকের প্রধান রহস্য৷ কিন্তু এই এক্সফোলিয়েশনের হার ত্বকের ধরন ছাড়াও পারিপার্শিক পরিবেশের উপর ও নির্ভর করে৷ কলকাতা ও বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যাপক দূষণ অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ত্বককে ক্ষতিগ্রস্হ করে৷ তাই দূষণ রুখতে ত্বকের সঠিক যত্ন নেওয়া উচিত সবার প্রথমেই৷ বাড়িতেই যদি বেসনের সঙ্গে লেবুর রস ও গোলাপ জল মিশিয়ে স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন৷ এছাড়াও কোন ভালো পার্লার থেকে স্কিন পলিশিং করতে পারেন৷ এছাড়াও ত্বকের ধরণ অনুয়ারী ফেসিয়াল করতে পারেন৷
  • বাইরে যাওয়ার আগে অবশ্যই সানস্কিন ব্যবহার করতে ভুলবেন না৷ খেয়াল রাখবেন সানস্ক্রনের মাত্রা অন্তত ২৫ যাতে হয়৷ যারা নিয়মিত শীততাপ নিয়ন্ত্রিত এলাকায় কাজ করেন তাদের ক্ষেত্রে অবশ্যই আলাদা যত্ন প্রয়োজন৷ এয়ারকন্ডিশন ত্বকের যাবতীয় অপরিহার্য তেল ও ময়শ্চারাইজিং ফ্যাক্টর বের করে নেয়৷ তার প্রতি চার ঘন্টা অন্তর ত্বকের হাইড্রেশন সঠিক রাখতে হবে৷ এমন যারা কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করেন তাদের সানস্ক্রিনের সঙ্গে মশ্চারাইজার মিশিয়ে ত্বকে মাখতে পারেন৷
  • চোখের তলার কালি কিন্তু চেহারা সৌন্দর্যকে একেবারে মাটি করে দেয়৷ প্রতিদিন রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ভিটামিন সি জাতীয় সিরাম যদি চোখের তলায় ৩ থেকে ৫ মিনিট মাসাজ করা যায় তবে চোখের তলায় কালির পরিমান অনেকটাই কমে যেতে পারে৷রোদে বেরোবার সময় ইউভি প্রোটেক্টেড সানগ্লাস ব্যবহার করুন৷
  • বিশেষ এই দিনটিতে নিজের মুখের বলিরেখা ঢাকতে বোটক্স করিয়ে নিতেই পারেন৷ বোটক্সে এক প্রকার টক্সিন ব্যবহরা করা হয়৷ এতে শুধু আপনার নিস্তেজ ত্বক জৌলস ফিরে পাবে তা নয় অতিরিক্ত বলিরেখার হাত থেকেও মুক্তি পাবেন৷এটে দাঁতকেও ভালো রাখে৷ তবে যারা ধুমপান করেন তাদের ক্ষেত্রে কিন্তু সূর্যরশ্মির থেকে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে৷

 

  • মুখে যদি ব্রণ হয় তবে তাতে নখ লাগাবেন না৷ ব্রণের মুখ যদি ফেটে যায় তেব তা মুখে বিশ্রী গর্তের সষ্টি করতে পারে৷ সেক্ষেত্রে মুখে ২ থেকে ৩ মিনিট ভ্যাপার নিতে পারেন৷ এটি মুখের ত্বকের জন্য খুবই কার্যকরী৷ ভ্যাপার নিয়ে বেঞ্জোইল পারঅক্সাইড জেল মেখে ঘুমোতে পারেন৷ এছাড়াও মুখে টোনার ব্যবহার করতে ভুলবেন না৷

 

  • মুখে কখনই সাবান ব্যবহার করবেন না৷ এতে ক্ষাতজাতীয় উপাদান থাকে যা ত্বকের নমনীয়তা নষ্ট করে৷ ত্বকের তারতম্য অনুযায়ী ফেস ওয়াশ ব্যবহার করুন৷

 

ঘরোয়া পদ্ধতি:

  • পাকা পেঁপের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে একটা পেসস্ট তৈরি করুন৷ মুখে ও গোটা শরীরে পেস্টটি লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিন৷ একদিন অন্তর যদি এটি করা যায় তবে খুব ভালো ভাবে স্কিন পলিশ করা যাবে এবং ত্বক জেল্লাদার হয়ে উঠবে৷ ভ্যালেন্টাইন ডের আগে এটি একবার অন্তত ব্যবহার করে দেখতে পারেন৷
  • চুলের সৌন্দর্য বাড়াতে এককাপ লারকেল তেল নিন, তাতে ডিমের কুসুম, ১ টেবিল চামচ কন্ডিশনার ও ৪ ফোঁটা ল্যভেন্ডার অয়েল মিশিয়ে চুলে ও স্ক্যাল্পে লাগিয়ে নিন৷ ৩০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন৷ যদি আপনার চুলের ধরন শুষ্ক হয় তবে অবশ্যই শ্যাম্পু করবেন না৷ যদি একান্ত শ্যাম্পু করার দরকার পরে তবে জলের মধ্যে সামান্য শ্যাম্পু মিশিয়ে চুল ধুয়ে নিতে পারেন৷ তবে হট ওয়েল বা ড্রায়ার ব্যবহার একেবারেই করবেন না৷