কলকাতা: টিভির সুন্দরী অভিনেত্রী বা মডেলদের মতো ত্বক বা চেহারা কে না চায়? কিন্তু সবাই পায় না। আমাদের দৈনন্দিন জীবনধারাই এর জন্যে দায়ী। তবে আমরা হয়তো ভাবি যে সুন্দর প্রোডাক্ট ব্যবহার করলেই ত্বকের জেল্লা ফুটে উঠবে। আসলে ত্বক যতক্ষণ না ভেতর থেকে উজ্জ্বল হচ্ছে ততক্ষণ তার উজ্জ্বলতা আপনি বুঝবেন না। এই বিশেষ জেল্লা আসবে একমাত্র খাদ্য পন্থা নিয়ন্ত্রণ করলেই। টুকটাক কিছু বদলই একদিন আপনাকে বিশাল পরিবর্তন এনে দেবে। এই পরিবর্তন আনতে গেলে সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস অবশ্যই রাখতে হবে আপনাকে। তাই পেট পরিষ্কার রাখতে এই হেলথ ড্রিঙ্কসগুলো পান করতে ভুলবেন না সকালে উঠেই।

১. মধু-লেবুর জল: ঈষদুষ্ণ গরম হলে ২ চামচ মধু ও এক টেবিল চামচ লেবুর রস মেশান। এটি শরীরের যাবতীয় একটি-অক্সিডেন্ট বের করে শরীরকে তাজা করতে সাহায্য করে। আবার ওজন কমাতেও এর গুরুত্বকে অস্বীকার করলে চলবে না। মধু ত্বককে আদ্র রাখে। আবার লেবুতে ভিটামিন সি আছে যা ত্বককে পুনরুজ্জীবন দান করতে পারে।

২. ফলের রস: দিনে একটা ফল খাওয়া খুব দরকারি। আজকাল যেভাবে আমাদের কাজের চাপ বাড়ছে তাতে মাথা ঠান্ডা রাখতে ও শরীরের রো প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে প্রাকৃতিক উপায় ছাড়া ভালো ফল আর কিছুতেই পাওয়া যায় না। তাই আপনি ব্রেকফাস্টের সঙ্গে ফলের রস খেতেই পারেন প্রতিদিন। গাজর, বিট, বেদনা খুব ভালো ত্বকের জন্যে। এতে শরীরে রক্ত চলাচলও ভালো হয়ে যায়।

আরো পোস্ট- বছরে একদিন খোলে এই নাগ মন্দির! জানেন কী ঘটে…

৩. জল থেরাপি: সঠিক পরিমাণে জলপান যে আপনাকে কী কী লাভ দিতে পারে তা গুণে বলা মুশকিল। যে কোনো রোগের সুস্থতার পথে একটাই দাবি কার্যকর তা হলো জলপান। আমাদের শরীরে ৭৫% তরল থাকে। তা কোনোভাবে কমে গেলেই নান সমস্যা শুরু হয় শরীরে। ৪.৫ থেকে ৫.৫ লিটার জল প্রতিদিন আপনাকে পান করতেই হবে সুস্থ থাকতে গেলে। তাই সকালে উঠেই চেষ্টা করবেন ১ গ্লাস জলপান করতে। এরপর মাঝে মাঝেই তেষ্টা না পেলেও জলপান করতে ভুলবেন না।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।