স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: অবশেষে জলপাইগুড়িবাসীর দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান হতে চলেছে৷ শহরের স্টেশন রোডের অস্থায়ী সার্কিট বেঞ্চের উদ্বোধন হবে ৯ মার্চ৷ তাই তার আগে যানজট দূর করতে সার্কিট বেঞ্চের বিপরীতে থাকা রেলের জমির দোকান উচ্ছেদ অভিযান চালাল পুরসভা ও পুলিশ৷

বুধবার সকাল থেকে প্রশাসনের আধিকারিকদের উপস্থিতিতে দোকান গুলি তুলে দেওয়া হয়। জানা গিয়েছে, স্টেশন বাজারে প্রায় ৬০০ টি ছোট বড় দোকান রয়েছে৷ এদিন সার্কিট বেঞ্চের ঠিক বিপরীতে থাকা ২৫ টি দোকান তুলে দেওয়া হয়৷ তবে সার্কিট বেঞ্চ উদ্বোধনের পর ওই দোকানগুলি আবার বসতে পারবে কিনা সেই বিষয়টি পরিষ্কার নয়।

ব্যবসায়ীদের একাংশের অভিযোগ, তাদের আগাম না জানিয়ে দোকানগুলি তুলে দেওয়া হয়েছে৷ বলে অভিযোগ তুলেন ব্যবসায়ীরা। তবে প্রশাসন আগাম জানানো না কেন তারই দাবি করছেন তাঁরা৷ অন্যদিকে এদিন পুরসভা সম্পূর্ণ প্রস্তুত হয়ে দোকান উচ্ছেদের জন্য এসেছিলেন। জেসিবি মেশিনও নিয়ে আসা হয়। যদিও জেসিবি মেশিন কাজে আসেনি। ব্যবসায়ীরা স্বেচ্ছায় দোকানগুলি ছেড়ে দেয়। তাদের বক্তব্য দীর্ঘ দিনের আমাদের দাবি পূরণ হচ্ছে৷ তার পক্ষে রয়েছি আমরা। তবে আমাদের রুটিরুজি এই দোকানকে ঘিরে। তাই প্রশাসনের কাছে আবেদন সেই বিষয়টি দেখা হোক।

 

ব্যবসায়ী গৌতম দাস বলেন, সরকারি নির্দেশে দোকান তুলতে হচ্ছে। আমরাও চাই সার্কিট বেঞ্চ হোক। এই কারণে স্বেচ্ছায় দোকান ভেঙে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। স্টেশন বাজারের সম্পাদক জেগিন্দ্রর দাসের মতে, আমার ব্যবসায়ীদের পাশে রয়েছি। দোকান যদি তুলে দেওয়া হয় তাহলে বাজারের ভিতরে থাকা ফাকা জায়গার দোকানের ব্যবস্থা করা হবে। এতে সমস্যা সমাধান হবে আশাকরি। এদিকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যানজট সমস্যা সমাধানে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I